ম্যাক্রোঁর বিরুদ্ধে বিক্ষোভে ফরাসিরা

ইউরোপ লিড নিউজ

(প্যারিস, ফ্রান্স) এক বছরেই প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁর নীতির প্রতি বিক্ষুদ্ধ হয়ে উঠেছে ফরাসিরা। শনিবার প্রেসিডেন্ট হিসেবে ম্যাক্রোঁর এক বছর পূর্ণ হয়। এ সময়ে নেয়া ম্যাক্রোঁর নেয়া বিভিন্ন নীতির প্রতি অনাস্থা জানিয়েছে তার বিরুদ্ধে দেশজুড়ে বিক্ষোভ শুরু করেছে দেশটির জনগণ। হাজার হাজার নিরাপত্তা পুলিশের উপস্থিতির মধ্যেও বিক্ষোভ অব্যাহত রেখেছে বিক্ষোভকারীরা।এ বিক্ষোভকে ম্যাক্রোঁর ক্ষমতার প্রতি বড় ধরনের চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখা হচ্ছে। তবে ম্যাক্রোঁর বিরুদ্ধে এ বিক্ষোভ প্রতিরোধ করতে পথে নেমেছেন ম্যাক্রোঁর অনেক সমর্থক। এমনকি সরকারের অনেক এমপিও। এমতাবস্থায় দুই পক্ষের মধ্যে সহিংসতার আশঙ্কা করা হচ্ছে।

গত বছরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে লা রিপাবলিকা এন মার্চে পার্টির প্রার্থী হিসেবে ব্যাপক সমর্থন ও ভোটে নির্বাচিত হয়ে ক্ষমতায় আসেন ম্যাক্রোঁ। ক্ষমতায় আসার পর গত এক বছরে শিক্ষাও রেল যোগাযোগের পাশাপাশি বেশ কিছু ক্ষেত্রে সংস্কারমূলক নীতি গ্রহণ করেছেন তিনি। এসব নীতির বেশিরবাগই যাচ্ছে ধনীদের পক্ষে এবং সাধারণ জনগণের বিরুদ্ধে। এক বছরে তার এ সব নীতিতে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে সাধারণ জনগণ।একটা প্রশ্নই এখন ব্যাপকভাবে বিতর্ক-আলোচনায় উঠে আসছে, ম্যাক্রোঁ কি সমাজ সংস্কারক নাকি ধনীদের প্রেসিডেন্ট।

এএফপি জানায়, ম্যাক্রোঁর গৃহীত নীতির বিরুদ্ধে অনাস্তা জানাতে নিরাপত্তা পুলিশের ব্যাপক উপস্থিতির মধ্যেই রাজধানী প্যারিসের কেন্দ্রে বিক্ষোভ প্রদর্শন শুরু করেছে হাজার হাজার মানুষ। ‘দূর হও ম্যাক্রোঁ’ বলে শ্লোগান দেয় তারা। এছাড়া দক্ষিণের শহর তোলুজ ও বোর্ডক্সসহ বিভিন্ন শহরে সমাবেশ করেছে বিক্ষোভকারীরা। অন্যদিকে এন মার্চে পার্টির ক্ষমতার এক বছর উদযাপনে প্যারিসের সেন্ট্রাল অপেরা হাউসের সামনে জড়ো হয়েছে সরকার সমর্থকরা। ‘পার্টি ফর ম্যাক্রোঁ’ নামে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ প্রতিরোধে ব্যানার-প্ল্যাকার্ড নিয়ে এতে যোগ দেয় সংসদ সদস্যরাও। তাদের ব্যানারে লেখা, ‘সমাজতান্ত্রিক অভ্যুত্থানকে না বলুন’। দুই পক্ষের মধ্যে সহিংসতার আশঙ্কায় প্রায় ২ হাজার নিরাপত্তা পুলিশ মোতায়েন করেছে সরকার।

প্যারিসের এ বিক্ষোভ শুরু হয় পহেলা মের মে দিবস উপলক্ষে। আয়োজকদের আহ্বানে এদিন প্যারিসে সংগঠিত হতে শুরু করে বিক্ষোভকারী। তবে শিগগিরই এ বিক্ষোভ সহিসংসতায় রুপ নেয়। এএফপির শনিবারের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কালো কাপড়ে বাধা কয়েক শত তরুণ কয়েকটি গাড়ি ও ম্যাকডোনাল্ড রেস্তোরায় আগুণ লাগিয়ে দেয়। নিরাপত্তা পুলিশ এ দিন প্রায় ২০০ বিক্ষোভকারীকে গ্রেফতার করলে বিক্ষোভ স্তিমিত হয়ে আসে। ম্যাক্রোঁর এক বছর পূর্তি উপলক্ষে শুক্রবার নতুন করে বিক্ষোভের ডাক দেয় আয়োজনকারীরা।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *