আফগানিস্তানে ’প্রাইভেট সেনা’ পাঠানোর চিন্তা-ভাবনা করছে যুক্তরাষ্ট্র

আমেরিকা

(কাবুল, আফগানিস্তান) আফগানিস্তান যুদ্ধকে বেসরকারিকরণ করার চিন্তা-ভাবনা করছে যুক্তরাষ্ট্র। এ বেসরকারিকরণ প্রক্রিয়ায় ব্যক্তিগত মালিকানাধীন কোম্পানির অধীনের ‘প্রাইভেট সেনা’ পাঠানো হতে পারে। এ ব্যাপারে সরকারের কাছে এক প্রস্তাবনা পেশ করেছে বেসরকারী সেনা যোগানদাতা প্রতিষ্ঠান ব্ল্যাক ওয়াটারের প্রতিষ্ঠাতা এরিক প্রিন্স। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এ প্রস্তাবে সম্মতি দিলে আফগানিস্তানের শিগগিরই দেখা যেতে পারে ‘ভাড়া খাটা সেনা’।

এনবিসি নিউজ এক প্রতিবেদনে বলেছে, আফগানিস্তানে মার্কিন যুদ্ধ নীতির ব্যাপারে নিজের জাতীয় নিরাপত্তা দলের কাজের ফলাফল নিয়ে ক্রমেই হতাশ হয়ে পড়ছেন ট্রাম্‌প। একইসঙ্গে এরিক প্রিন্সের দেয়া প্রস্তাবে আগ্রহ দেখাচ্ছেন তিনি। গত বছর ট্রাম্পের ’আফগানিস্তান নীতি’ ঘোষণার সময় প্রস্তাবটি তোলেন প্রিন্স। তিনি বলেন, মার্কিন প্রশাসনের জন্য প্রাইভেট সেনাবাহিনী পাঠানো উপযুক্ত এবং সমপোযোগী সিদ্ধান্ত হবে’।

প্রিন্সের প্রস্তাবনায় বলা হয়, আফগানিস্তান থেকে সরকারি সেনা সরিয়ে নিয়ে সেখানে চুক্তিভিত্তিক ব্যক্তিগত সেনা কোম্পানি নিয়োগ করা হবে। এই সেনারা মার্কিন সরকারের বিশেষ দূতের তত্ত্বাবধানে কাজ করবে। এই বিশেষ দূত সরাসরি প্রেসিডেন্টের নিকট রিপোর্ট করবেন।

তবে এই প্রস্তাব ‘নৈতিকতা ও নিরাপত্তা’র কারণে মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের সমর্থন পায়নি। গত মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেমস ম্যাটিস বলেছেন, আফগানিস্তানে প্রাইভেট সেনাবাহিনী নিয়োগ করা ‘খুব যৌক্তিক সিদ্ধান্ত হবে না’। বর্তমানে ১৪০০০ মার্কিন সেনা আফগানিস্তানে নিয়োজিত রয়েছে। মূলত ন্যাটোর সাথে সহযোগিতায় আফগানিস্তানের স্থানীয় সামরিক বাহিনীকে প্রশিক্ষণ এবং সহায়তা করে আসছে।

 

 

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *