ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় সমর্থনের অঙ্গীকার সৌদি বাদশাহর

মধ্যপ্রাচ্য

(রিয়াদ সৌদি আরব) ফিলিস্তিনি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় স্থায়ী সমর্থনের কথা পুর্নব্যক্ত করেছেন সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ। রিয়াদ সফররত ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের সঙ্গে মঙ্গলবার এক বৈঠকে তিনি এই অঙ্গীকার করেন। সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থার খবরে বলা হয়েছে, পূর্ব জেরুজালেমকে রাজধানী করে স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় ফিলিস্তিনি জনগণের অধিকারের প্রতি সমর্থনের অঙ্গীকার করেছেন সৌদি বাদশাহ।

ফিলিস্তিনের বর্জনের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্যোগে পোল্যান্ডের রাজধানী ওয়ারসোতে মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক এক সম্মেলন শুরুর আগে সৌদি আরব সফরে যান মাহমুদ আব্বাস। ওয়ারসো সম্মেলনে ইসরায়েল-ফিলিস্তিন সংঘাত নিরসনে যুক্তরাষ্ট্রের এখনও প্রকাশ না করা ‘ডিল অব দ্য সেনচুরি’ তথা ‌’শতাব্দীর সেরা চুক্তির’ বিষয়ে ইঙ্গিত দেয়া হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সম্মেলনে ফিলিস্তিনকে আমন্ত্রণ জানানো হলেও ওই আমন্ত্রণ প্রত্যাখান করে ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ। চলতি সপ্তাহের বুধ ও বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া সম্মেলন বর্জনের ডাক দেয় তারা। সম্মেলন বর্জন সম্ভব না হলে মন্ত্রীপর্যায়ের চেয়ে নিম্নপর্যায়ের প্রতিনিধি পাঠানোর আহ্বান জানায় ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ।

গত মাসে ওয়ারসো সম্মেলন আয়োজনের ঘোষণা দিয়ে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেছিলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা এই সম্মেলনে মধ্যপ্রাচ্যে ইরানের অস্থিতিশীল প্রভাব বিষয়ে আলোচনা করবেন। তবে ইউরোপের বড় দেশগুলো পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের চেয়েও নিম্নসারিরর প্রতিনিধি পাঠানোর ঘোষণা দেওয়ায় সম্মেলনের আলোচ্যসূচি নিয়ে সুর নরম করেছে যুক্তরাষ্ট্র ও পোল্যান্ড। এখন তারা বলছে, এই সম্মেলনের মূল লক্ষ্য ইরান নয় বরং মধ্যপ্রাচ্যে আরও বিস্তৃত আলোকপাত করা হবে।

ধারণা করা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের কথিত শতাব্দীর সেরা চুক্তির খসড়া করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জামাতা ও উপদেষ্টা জ্যারেড কুশনার। বৃহস্পতিবার ওয়ারসো সম্মেলনে তার ভাষণ দেওয়ার কথা থাকলেও এই চুক্তির বিষয়ে তিনি বিস্তারিত কিছু জানাবেন না। আগামী ৯ এপ্রিল ইসরায়েলের সাধারণ নির্বাচনের আগে তিনি এই চুক্তি প্রকাশ করবেন না বলে আশা করা হচ্ছে।

ফিলিস্তিনের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা ওয়াফা জানিয়েছে, ফিলিস্তিনি অঞ্চলগুলোর সর্বশেষ পরিস্থিতি সৌদি বাদশাহকে জানিয়েছেন আব্বাস। অব্যাহত ভূমি দখল ও তথাকথিত শতাব্দীর সেরা চুক্তি বাস্তবায়নে ইসরায়েলের প্রচেষ্টার বিষয়ে সৌদি বাদশাহকে জানান ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট। মধ্যপ্রাচ্যে যুক্তরাষ্ট্রের ঘনিষ্ঠ মিত্র দেশ সৌদি আরব। প্রকাশ্যে দেশটি ইসরায়েল বিরোধী অবস্থান নিলেও ইহুদি জাতিরাষ্ট্রটির সঙ্গে বিভিন্ন ইস্যুতে সৌদি আরবের ঘনিষ্ঠ যোগাযোগের কথা বিভিন্ন সময়ে সংবাদমাধ্যমে উঠে এসেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *