পাকিস্তান-ভারতকে কখনোই পরমাণু শক্তিধর দেশ হিসেবে স্বীকৃতি দেয় নি চীন: বেইজিং

পূর্ব এশিয়া

(বেইজিং, চীন) চীন বলেছে পাকিস্তান এবং ভারতকে কখনোই পরমাণু শক্তিধর দেশ হিসেবে স্বীকৃতি দেয় নি বেইজিং। এ ছাড়া উত্তর কোরিয়াকেও চীনের এমন স্বীকৃতি দেয়ার সম্ভাবনা নাকচ করে দেয়া হয়েছে। ভিয়েতনামে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং উত্তর কোরিয়ার নেতা কি জং-উনের দ্বিতীয় শীর্ষ বৈঠক ব্যর্থ হওয়ার পর এ এ কথা জানিয়েছে দেশটি। খবর এনডিটিভির।

চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র লু কাং এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে এ সব কথা বলেন। তিনি বলেন, চীন কখনোই পাকিস্তান এবং ভারতকে পরমাণু দেশ হিসেবে স্বীকৃতি দেয় নি। এ ক্ষেত্রে চীনের অবস্থান কখনোই বদলায় নি বলেও জানান তিনি। পাকিস্তান এবং ভারতের মতোই পরমাণু দেশ হিসেবে উত্তর কোরিয়াকে চীন স্বীকৃতি দেবে কিনা জানতে চাওয়া হলে এ জবাব দেন তিনি।

৪৮ সদস্যের পরমাণু সরবরাহ গোষ্ঠী বা এনএসজিতে নয়াদিল্লির অন্তর্ভুক্তির বিরোধিতা করছে চীন। পরমাণু অস্ত্র বিস্তার চুক্তি এনপিটিতে ভারত সই না করায় এ বিরোধিতা করছে চীন। ভারতের পথ ধরে পাকিস্তানও এনএসজি সদস্য হওয়ার চেষ্টা করছে। এ সংস্থার সদস্য হওয়ার জন্য দু’টো পদক্ষেপের ওপর গুরুত্ব দিয়েছে চীন। এ জন্য প্রথমে এনপিটি সই করতে হবে এবং পরবর্তীতে সদস্য করার বিষয়ে সুনির্দিষ্টভাবে আলোচনা হবে বলে জানিয়ে দিয়েছে চীন।

গবেষণা সংস্থাগুলোর মতে, পরমাণু অস্ত্র আছে এখন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, চীন, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, ভারত, পাকিস্তান ও উত্তর কোরিয়ার হাতে। ইসরাইলের হাতে পারমাণবিক অস্ত্র আছে বলে মনে করা হলেও তারা কখনো একথা স্বীকার বা অস্বীকার কোনটাই করে নি। যুক্তরাষ্ট্রের হাতে পরমাণু অস্ত্র আছে ৬ হাজার ৮শ’, রাশিয়ার ৭ হাজার, ফ্রান্সের ৩শ’, যুক্তরাজ্যের ২১৫, চীনের ২৭০, ভারতের ১৩০, পাকিস্তানের ১৪০, ইসরায়েলের ৮০, আর উত্তর কোরিয়ার আছে ২০টি ।

সব দেশই এসব তথ্যের ব্যাপারে কড়া গোপনীয়তা বজায় রাখে। তবে যেটুকু জানা যায়, তা হলো – পৃথিবীর মাট ৯টি দেশের হাতে এখন ৯ হাজার পরমাণু বোমা আছে – যদিও স্নায়ুযুদ্ধের অবসানের পর এ সংখ্যা আগের চেয়ে কমে গেছে। পরমাণু বোমাগুলো অনেক ক্ষেত্রে বসানো আছে ক্ষেপণাস্ত্রের মাথায়। তা ছাড়া আছে বিভিন্ন সামরিক বিমান-ঘাঁটিতে বা অস্ত্রের গুদামে।

বিভিন্ন দেশে এখন শত শত পারমাণবিক বোমা বসানো-ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েন করা আছে। আমেরিকান ক্ষেপণাস্ত্রগুলো বসানো আছে বেলজিয়াম, জার্মানি, ইতালি, নেদারল্যান্ডস, এবং তুরস্কে – সব মিলিয়ে এগুলোর সংখ্যা প্রায় ১৫০। অন্তত ১৮০০ পরমাণু বোমা আছে যেগুলো খুব স্বল্প সময়ের নোটিশে নিক্ষেপ করা যাবে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সব পরমাণু-শক্তিধর দেশই এখন তাদের অস্ত্রগুলোর আধুনিকায়ন করছে, বা করার পরিকল্পনা করছে।

সবচেয়ে বেশি পরমাণু বোমা আছে যুক্তরাষ্ট্র আর রাশিয়ার হাতে। এ দুটি দেশের হাতে আছে ১৫ হাজার বোমা – তবে এই হিসেবে এমন বোমাও ধরা হয়েছে যেগুলো এখন ‘অবসরে’ যাচ্ছে অর্থাৎ এগুলো অচিরেই খুলে ফেলা হবে। স্টকহোমের একটি শান্তি গবেষণা ইনস্টিটিউট বলছে, ১৯৮০ দশকে পারমাণবিক বোমা বা ওয়ারহেডের সংখ্যা ছিল প্রায় ৭০ হাজার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *