ভারতীয় নাগরিকত্ব পেলেন ৪০ পাকিস্তানি

ভারত লিড নিউজ

সীমান্তে চলমান তুমুল উত্তেজনার মধ্য দিয়েই ভারতীয় নাগরিকত্ব পেলেন ৪০ পাকিস্তানি।

গতকাল বৃহস্পতিবার মহারাষ্ট্র প্রদেশে পুনে জেলা প্রশাসন ৪০জন পাকিস্তানি নাগরিককে ভারতীয় নাগরিকত্ব প্রদান করে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জেলা কর্মকর্তারা জানান, এই আবেদনকারীরা দীর্ঘদিন আগে থেকেই ভারতে স্থানান্তরিত হয়েছিল।

তারা গত কয়েক বছর ধরেই পুনেতে থাকছে। এই আবেদনগুলো দীর্ঘ দিন ধরে মুলতুবি ছিল।

পুনের জেলা প্রশাসক নাভাল কিশোর রাম বলেন, ‘বৃহস্পতিবার মোট ৪৫ জন আবেদনকারীকে ভারতীয় নাগরিকত্ব দেওয়া হয়েছে।

এই আবেদনগুলোর বেশিরভাগই পাকিস্তান নাগরিকদের ছিল। আফগানিস্তান ও বাংলাদেশ নাগরিকদের মধ্যে এক কিংবা দুটি আবেদন ছিল। সবাইকে ভারতীয় নাগরিকত্ব দেওয়া হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আবেদনকারীদের কিছু অংশ ৪০ বছর আগে ভারতে এসেছিলেন। কিন্তু তাদের ভারতীয় নাগরিকত্ব ছিল না।

১৯৫৫ সালে নাগরিকত্ব আইন সংশোধন করার পর, জেলা সংগ্রাহককে সংখ্যালঘুদের আবেদনকারীদের নাগরিকত্ব প্রদানের ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে। ওই সংশোধনী অনুযায়ী, আমি এই ব্যক্তিদের নাগরিকত্ব দিয়েছি।’

জেলা প্রশাসক আরও বলেন, ‘এই আবেদনগুলোর জন্য অনেক পরিমানে সুবিবেচনার প্রয়োজন।

বহু সংস্থাকে এই সংশোধনের কাজে লাগানো হয়। সংস্থাগুলির কাছে ছাড়পত্র পাওয়ার পর আমি তাদের সবাইকে আহ্বান জানাই এবং তাদের একাধিক শুনানিও প্রদান করি। একটি শুনানির পরেই আমি তাদের প্রস্তাব অনুমোদন করেছি।’

প্রসঙ্গত, গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ভারতনিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের পুলওয়ামায় দেশটির আধা সামরিক সিআরপিএফের গাড়িবহরে আত্মঘাতী হামলায় ৪০ জওয়ান নিহত হন। পাকিস্তানভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মোহাম্মদ এ হামলার দায় স্বীকার করে।

এর পর থেকেই দুই প্রতিবেশী দেশের মধ্যে নতুন করে উত্তেজনা ছড়ায়।

এ ঘটনার ১২ দিন পর ২৬ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের বালাকোটে বিমান হামলা চালায় ভারত। এর পরদিন দুই দেশের সেনাদের মধ্যে কাশ্মীর সীমান্তে গোলা ও গুলিবিনিময় হয়। আকাশযুদ্ধে ভারত হারায় দুটি যুদ্ধবিমান।

তখনই পাকিস্তান বাহিনীর হাতে বন্দী হন ভারতীয় পাইলট অভিনন্দন। পাল্টাপাল্টি হামলায় দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা চলমান থাকা অবস্থাতেই গত ১ মার্চ আটক পাইলট অভিনন্দনকে মুক্তি দেয় ইসলামাবাদ। এদিন বিকাল থেকেই সীমান্তের বিভিন্ন এলাকায় পরস্পরকে লক্ষ্য করে গোলাবর্ষণ শুরু করে দুই দেশের সেনাবাহিনী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *