অস্ট্রেলিয়ার সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন পেয়েছেন বাংলাদেশি সাবরিন ফারুকি

বিশ্বজগৎ

অস্ট্রেলিয়ার নিউ সাউথ ওয়েলসের (এনএসডব্লিউ) আসন্ন রাজ্য সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন পেয়েছেন বাংলাদেশি নাগরিক সাবরিন ফারুকি উর্শী। এই নির্বাচনে তিনি দ্বিকক্ষ বিশিষ্ট পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষে লেবার পার্টির (এএলপি) প্রার্থী হিসেবে অংশ নিচ্ছেন।

সাবরিন ফারুকি উর্শী হবেন প্রথম বাংলাদেশি যিনি অস্ট্রেলিয়ার নিউ সাউথ ওয়েলসের এই নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন।

আগামী ২৩ মার্চ রাজ্য সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে তিনি বর্তমান বিরোধী দল লেবার পার্টির প্রার্থী হিসেবে আইন পরিষদের একটি আসনে লড়বেন।সিডনিতে ১৫ বছর ধরে বসবাস করছেন সাবরিন ফারুকি উর্শী। তবে বাংলাদেশের ঢাকাতেই শৈশব-কৈশোর কাটিয়েছেন সাবরিন।

সে হিসেবে পড়াশোনাও ঢাকাতেই করেছেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজিতে অনার্স শেষ করে উর্শী উচ্চতর ডিগ্রি নিতে অস্ট্রেলিয়া পাড়ি জমান। সেখানে ইউনিভার্সিটি অব নিউ সাউথ ওয়েলস থেকে মাস্টার্স (ল্যাংগুয়েজ ও টিচিং) এবং ২০১০ সালে ইউনিভার্সিটি অব সিডনি থেকে পিএইচডি ডিগ্রি সম্পন্ন করেন।

ইউনিভার্সিটি অব সিডনিতে তিন বছর শিক্ষকতাও করেছেন সাবরিন। এরপর ফেডারেল সরকারের ব্যুরো পরিসংখ্যানে তিন বছর এবং ফেয়ার ওয়ার্ক কমিশনে পাঁচ বছর চাকরি করেন।

এসময় অস্ট্রেলিয়ার মূলধারার রাজনীতিতে অনুপ্রবেশ ঘটে সাবরিনের। প্রায় চার বছর ধরে সেখানে রাজনীতিতে বেশ সক্রিয় এই বাংলাদেশি।

এ বিষয়ে সাবরিন ফারুকি উর্শী বলেন, ‘আমি মানুষের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রাখতে চাই। এজন্য বেশ কিছু স্বেচ্ছাসেবী কাজে জড়িত আমি। আর এ কাজের পেছনে রাজনৈতিক পৃষ্ঠপোষকতা থাকলে বড় মাপের প্লাটফর্মের সুযোগ থাকে। এ ছাড়াও সংসদে জনপ্রতিনিধি ও নীতিনির্ধারক হিসেবে কাজ করার সুযোগ রয়েছে।’

সমাজকল্যাণে নারীদের আরও সম্পৃক্ততা প্রয়োজন উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমি চাই সমাজকল্যাণ ও রাজনীতির যোগ্যতাকে কাজে লাগিয়ে সমাজটাকে আরও গতিশীল করে তুলতে। নারীদের এখন বহুমুখী প্রতিভা রয়েছে, যা কাজে লাগিয়ে কল্যাণমুখী সমাজ গড়ে তোলা সম্ভব।’

অস্ট্রেলিয়ায় বেশ কিছু সামাজিক কর্মে নিজেকে যুক্ত রেখেছেন সাবরিন। নব মাইগ্রেন্ট এবং রিফিউজি সেটেলমেন্টের সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন। ‘সিতারাস স্টোরি’ নামের একটি সেচ্ছাসেবী সংস্থার মাধ্যমে তহবিল সংগ্রহ করে বাংলাদেশের মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য সহযোগিতা করেন সাবরিন ফারুকি উর্শী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *