উত্তাল কাশ্মীর

ভারতীয় পুলিশের হেফাজতে শিক্ষকের মৃত্যু, উত্তাল কাশ্মীর

ভারত

ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীরে পুলিশ হেফাজতে এক শিক্ষকের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে ব্যাপক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। রিজওয়ান আসাদ নামের ওই রসায়ন শিক্ষকের মৃত্যুতে তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন কাশ্মীরের রাজনীতিবিদরা।

পুলিশের বরাত দিয়ে আলজাজিরা ও ডন বলছে, ২৮ বছর বয়সী ওই শিক্ষককে ‘সন্ত্রাস সংক্রান্ত্র’ মামলার তদন্তের অংশ হিসেবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কয়েকদিন আগে তাকে গ্রেফতার করা হয়।কাশ্মীর পুলিশ বলছে, সোমবার রাতে ওই শিক্ষকের মৃত্যু হয়েছে। তার মৃত্যু কারণ খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলেও জানিয়েছে পুলিশ।

কিন্তু নিহতের পরিবার মৃত্যুর বিষয়টি জানতে পেরেছে মঙ্গলবার। তারা বলছেন, জেলখানায় তাকে ‘ঠাণ্ডা মাথায় খুন’ করা হয়েছে।

পরিবারের বরাত দিয়ে ডন বলছে, রসায়নে গ্রাজুয়েট করা রিদওয়ান আসাদ একটি বেসরকারি স্কুলে শিক্ষকতা করতেন এবং ওয়ান্তিপোরা ইসলামিক বিশ্ববিদ্যালয়ে অতিথি শিক্ষক হিসেবে ক্লাস নিতেন।এদিকে, মঙ্গলবার ওই শিক্ষকের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে জম্মু-কাশ্মীরের মানুষ প্রতিবাদ জানাতে রাস্তায় নেমে পড়েন। এ সময় পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে বিক্ষোভকারীরা।

অন্যদিকে, পুলিশ প্রতিবাদকারীদের লক্ষ্য করে টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করে। তবে এতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেছে কি না তা খবরে বলা হয়নি।এ ছাড়া জম্মু-কাশ্মীরের রাজধানী শ্রীনগরের দোকান-পাট বন্ধ করা হয়। এ ছাড়া সরকার কিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়।  

এদিকে, পুলিশের তত্ত্বাবধানে তরুণ শিক্ষকের মৃত্যুতে তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন জম্মু-কাশ্মীরের সাবেক দুই মুখ্যমন্ত্রী ওমর আব্দুল্লাহ ও মেহবুবা মুফতি।

অন্যদিকে, কাশ্মীরের শীর্ষ মানবাধিকার কর্মী খুররম পারভেজ তুর্কি গণমাধ্যম আনাদলুকে বলেছেন, ‘এ নিয়ে কাশ্মীরে ভারতীয় বাহিনীর অধীনে বিচারের নামে কয়েক হাজার লোকের মৃত্যু হয়েছে। কিন্তু একটার ব্যাপারেও কোনো ন্যায়বিচার পাওয়া যায়নি। সম্পূর্ণ জবাবদিহিতা ও বিচারহীনতার কারণে এমনটা ঘটছে। আর তারই অংশ হিসেবে সর্বশেষ রিদওয়ান আসাদকে হত্যা করা হলো।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *