হিজবুল্লাহর প্রতি জনগণের সমর্থন রয়েছে: পম্পেওকে লেবাননের প্রেসিডেন্ট

মধ্যপ্রাচ্য লিড নিউজ

(বৈরুত, লেবানন) লেবাননের প্রেসিডেন্ট মিশেল আউন বলেছেন, লেবাননের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহর প্রতি দেশের জনগণের ব্যাপক সমর্থন রয়েছে। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওর সঙ্গে বৈঠকে মিশেল আউন একথা বলেছেন। শুক্রবার এক টুইটার বার্তায় এ তথ্য জানিয়েছে প্রেসিডেন্ট আউনের দফতর। খবর আলজাজিরা ও পার্স টুডের।

ইসরাইল সফরের পর শুক্রবার লেবানন সফর করেন মাইক পম্পেও। প্রেসিডেন্ট আউনের সঙ্গে বৈঠকে তিনি বলেন, লেবানন ও এর জনগণকে যে কোনো একটি বিকল্প বেছে নিতে হবে। সাহসের সঙ্গে একটি স্বাধীন ও গর্বিত জাতি হিসেবে সামনে অগ্রসর হওয়া অথবা ইরান ও হিজবুল্লাহর অন্ধকার অভিলাষের কাছে নিজেদের ভবিষ্যৎকে সঁপে দেয়া।

জবাবে পম্পেওকে প্রেসিডেন্ট আউন বলেন, ‘জাতীয় ঐক্য ও বেসামরিক লোকজনের নিরাপত্তা আমাদের কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।’ এ বক্তব্যের মাঝদিয়ে তিনি মূলত হিজবুল্লাহর গুরুত্ব তুলে ধরেছেন। পম্পেও রাজধানী বৈরুতের পূর্বে অবস্থিত বাবদা প্রেসিডেন্ট প্রাসাদে আউনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। 

হিজবুল্লাহর বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়ার জন্য মাইক পম্পেও লেবাননের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর জেবরান বাসিলের প্রতিও আহ্বান জানান। তবে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে লেবাননের পররাষ্ট্রমন্ত্রী পম্পেওর দাবি সরাসরি নাকচ করে বলেন, হিজবুল্লাহ সন্ত্রাসী সংগঠন নয়। তিনি জানান, মার্কিন মন্ত্রীর সঙ্গে তার গঠনমূলক আলোচনা হয়েছে কিন্তু হিজবুল্লাহ ইস্যুতে মতপার্থক্য রয়েছে। বাসিল দৃঢ়তার সঙ্গে বলেন, হিজবুল্লাহ হচ্ছে লেবাননের একটি রাজনৈতিক দল, তাদের ব্যাপক জনপ্রিয়তা রয়েছে এবং তারা কোনোভাবেই সন্ত্রাসী সংগঠন নয়।

এদিকে জাতীয় সংসদের স্পিকার নাবিহ বেরির সঙ্গে পম্পেও সাক্ষাৎ করতে গেলে তিনি বলেছেন, হিজবুল্লাহর ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের কারণে লেবাননের সাধারণ মানুষের ক্ষতি হচ্ছে। তিনি বলেন, হিজবুল্লাহ একটি রাজনৈতিক দল। তারা সরকার ও সংসদে রয়েছে এবং  ইসরাইলের দখলদারিত্ব থেকে লেবাননের ভূখণ্ড মুক্ত করার জন্য ইসরাইলকে প্রতিরোধ করছে। লেবানন সফরে পম্পেও দেশটির প্রধানমন্ত্রী সাদ হারিরির সঙ্গেও বৈঠক করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *