বিশ্বের তিনজন মানবতাবাদী নেতার একজন শেখ হাসিনা: জাতিসংঘের গণহত্যা প্রতিরোধ বিষয়ক বিশেষ উপদেষ্টা

বাংলাদেশ

(ঢাকা, বাংলাদেশ) বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বিশ্বের তিনজন মানবতাবাদী নেতার একজন হিসেবে অভিহিত করেছেন জাতিসংঘের আন্ডার সেক্রেটারি ও গণহত্যা প্রতিরোধ বিষয়ক বিশেষ উপদেষ্টা অ্যাডামা ডিয়েং। তিনি বলেছেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা অন্তত ১০ লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিয়েছেন। তিনি মানবতার বড় দৃষ্টান্ত উপস্থাপন করেছেন। রোববার বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজ (বিআইআইএসএস) মিলনায়তনে ‘বাংলাদেশে ১৯৭১ সালের গণহত্যা’ শীর্ষক এক সেমিনারে তিনি এ মন্তব্য করেন। আরটিভি অনলাইনের।

অ্যাডামা ডিয়েং এ সময় রোহিঙ্গাদের ওপর চালানো মিয়ানমারের বর্বরতাকে গণহত্যা হিসেবে আখ্যায়িত করে এ বিষয়ে বাংলাদেশের প্রতি জাতিসংঘের দৃঢ় সহযোহিতার কথা পুনরুল্লেখ করেন। তিনি বলেন, গণহত্যা চালানো সেইসব নৃশংতাকারীকে অবশ্যই বিচারের আওতায় আনতে হবে।

জাতিসংঘের আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল এসময় বাংলাদেশ থেকে মিয়ানমারের নাগরিকদের দেশে ফিরিয়ে নিতে দেশটির ওপর চাপ জোরদারের জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন, বাংলাদেশ রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান একা করতে পারবে না। তাই এই সমস্যার সমাধানে মিয়ানমারের ওপর আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে চাপ আরো বাড়াতে হবে।

অ্যাডামা ডিয়েং বলেন, জাতিসংঘ চায় রোহিঙ্গারা তাদের নিজ রাজ্য রাখাইনে পুনর্বাসিত হোক এবং সেখানে শান্তিপূর্ণ ও বৃহত্তর সমাজ গড়ে উঠুক। অ্যাডামা ডিয়েং নারীর ক্ষমতায়নের জন্য প্রধানমন্ত্রীর ভূয়শী প্রশংসা করেছেন এবং বলেছেন, আপনি নারীর ক্ষমতায়নের প্রতীক। তিনি বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় তিনজন নারী নেতৃত্বের নাম উল্লেখ করেন। এরা হচ্ছেন : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মারকেল এবং নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আহডার্ন।

পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক, সেন্টার ফর জেনোসাইড স্টাডিজ এর পরিচালক বিচারপতি মফিদুল হক, আইনজীবী ব্যারিস্টার মো. আমীর-উল ইসলাম, বিআইআইএসএস চেয়ারম্যান রাষ্ট্রদূত মুনশি ফাইজ আহমদ ও সংস্থার মহাপরিচালক এ কে এম আব্দুর রহমান সেমিনারে বক্তব্য দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *