সিরিয়ার গোলান মালভূমিকে ইসরাইলি ভূখণ্ডের স্বীকৃতি দিলেন ট্রাম্প

মধ্যপ্রাচ্য

(ওয়াশিংটন, যুক্তরাষ্ট্র) দখলকৃত সিরিয়ার গোলান মালভূমিকে ইসরাইলি ভূখণ্ডের স্বীকৃতি দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। সোমবার আনুষ্ঠানিকভাবে এ সংক্রান্ত ঘোষণাপত্রে স্বাক্ষর করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আন্তর্জাতিক আইন এবং জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের ইশতেহারের তোয়াক্কা না করেই এ স্বীকৃতি দিল হোয়াইট হাউস। ট্রাম্পের এই সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছে জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদ, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, তুরস্কসহ বিভিন্ন দেশ ও সংস্থা। খবর  ডেইলি সাবাহ, প্রেস টিভির।

১৯৬৭ সালের আরব-ইসরায়েল যুদ্ধের সময় সিরীয় ভূখণ্ড গোলান মালভূমি দখল করে নেয় ইসরায়েল। তবে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় কখনও ইসরায়েলের এই দখলদারিত্বের স্বীকৃতি দেয়নি। তবে দীর্ঘদিনের মার্কিন নীতি থেকে সরে এসে ২০১৯ সালের ২৫ মার্চ আনুষ্ঠানিকভাবে গোলান মালভূমির ওপর ইসরাইলি দখলদারিত্বের স্বীকৃতি দেন তিনি।

হোয়াইট হাউসে ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু এবং ট্রাম্পের জামাতা ও উপদেষ্টা ইহুদি ধর্মাবলম্বী জ্যারেড কুশনারের উপস্থিতিতে এ সংক্রান্ত ঘোষণাপত্রে স্বাক্ষর করেন ট্রাম্প। এর আগে টুইটারে দেয়া এক পোস্টে ট্রাম্প বলেন, ‘ইসরাইল রাষ্ট্র ও আঞ্চলিক স্থিতিশীলতার জন্য গোলান মালভূমির কৌশলগত ও নিরাপত্তাজনিত গুরুত্ব রয়েছে। অঞ্চলটিতে ইসরায়েলি সার্বভৌমত্বের স্বীকৃতি দেওয়ার এখনই সময়।’

এর আগে ২০১৭ সালে ফিলিস্তিনের জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেন ট্রাম্প। ইসরায়েলে নিযুক্ত মার্কিন দূতাবাস তেল আবিব থেকে সরিয়ে জেরুজালেমে সরিয়ে নেয়ার নির্দেশ দেন তিনি। এর বিরুদ্ধে ফিলিস্তিনসহ বিশ্বজুড়ে তুমুল নিন্দা ও প্রতিবাদ শুরু হয়। ট্রাম্পের সিদ্ধান্ত কার্যকরকে আইনি প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে মোকাবিলা করতে নিরাপত্তা পরিষদে প্রস্তাব তোলে আরব দেশগুলো।

পরিষদের ১৪ সদস্য প্রস্তাবের পক্ষে থাকলেও যুক্তরাষ্ট্র এতে ভেটো দেয়। তবে যুক্তরাষ্ট্রের হুমকি উপেক্ষা করে সাধারণ পরিষদে ১২৮-৯ ভোটে প্রস্তাবটি পাস হয়। জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতির ধারাবাহিকতায় এবার গোলান মালভূমিতেও ইসরায়েলি দখলদারিত্বের স্বীকৃতি দিলেন ট্রাম্প।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *