গোলান মালভূমিতে বসতি নির্মাণের বৃহৎ পরিকল্পনা ইসরাইলের

মধ্যপ্রাচ্য

(তেলআবিব, ইসরাইল) দখলকৃত গোলান উপত্যকায় বসতি নির্মাণের বৃহৎ পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে ইসরাইল। আগামী ৩০ বছরের মধ্যে সেখানে ইসরাইলের আড়াই লাখ বাসিন্দাকে সরিয়ে নেয়া হবে। ইসরাইলি ব্রডকাস্টিং অথোরিটি (আইবিএ) সোমবার এ খবর প্রকাশ করেছে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গোলান উপত্যকাকে ইসরাইলের ভূখণ্ড হিসেবে ঘোষণা করার পর এ পরিকল্পনা নিয়ে এগোচ্ছে তেলআবিব। খবর আনাদোলু এজেন্সি, পার্স টুডে ও দ্য পেনিনসুলা কাতারের।  

১৯৬৭ সালে যুদ্ধের সময় ইসরাইল কৌশলগতভাবে গুরুত্বপূর্ণ এই মালভূমিটি সিরিয়ার কাছ থেকে দখল করে নেয়। এরপর ১৯৮১ সালে আন্তর্জাতিক সব আইনকানুনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে গোলানকে নিজের ভূখণ্ড হিসেবে ঘোষণা করে দখলদার ইসরাইল। গোটা বিশ্বের প্রতিবাদ উপেক্ষা করে সম্প্রতি ট্রাম্প গোলান মালভূমিকে ইসরাইলের অংশ হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছেন।

আইবিএ জানিয়েছে, প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু’র মন্ত্রিসভা গোলানে নতুনকরে কয়েকটি ইহুদি উপশহর নির্মাণের কথা ভাবছে। নয়া পরিকল্পনা অনুযায়ী সেখানে আড়াই লাখ ইহুদিবাদীর জন্য বাড়ি নির্মাণ করা হবে। ইসরাইলি টিভির খবরে বলা হয়েছে, নতুন বৃহৎ পরিকল্পনা ২০৪৮ সালের মধ্যে পুরোপুরি বাস্তবায়ন করা হবে। বর্তমানে গোলানে ৫০ হাজার অধিবাসী রয়েছে। এর মধ্যে ইসরাইলের ২২ হাজার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *