মোদিকে `বিদায়ী স্যারজি’ বলে মন্তব্য শত্রুঘ্ন সিনহার

ভারত

(নয়াদিল্লি, ভারত) বিজেপিতে থাকতে বারবার ক্ষমতাসীন নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলেছিলেন তিনি। এরপর স্বাভাবিকভাবেই দলে কোণঠাসা হয়ে পড়েছিলেন শত্রুঘ্ন সিনহা। সদ্য কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন তিনি। মঙ্গলবার দলের ইস্তেহার প্রকাশের পর প্রধানমন্ত্রীকে পরপর ট্যুইট বোমার বিদ্ধ করেন বিহারী বাবু সিনহা। মোদিকে তিনি `মাননীয় বিদায়ী স্যারজি’ বলেও মন্তব্য করেন।

তিনি ট্যুইটে মোদীকে ‘অনারেবল আউটগোয়িং স্যারজি’ বা’ মাননীয় বিদায়ী স্যারজি’ বলে সম্বোধন করেন। শত্রুঘ্ন সিনহার মঙ্গলবারের টুইটগুলির মূল লক্ষ্য ছিল, মোদীর সাম্প্রতিক কিছু বক্তৃতা। যেগুলি এই বিক্ষুব্ধ বিজেপি সাংসদের মতে, বিষয়হীন এবং গভীরতাহীন। শুধু তাই নয়। তিনি মোদীর বক্তৃতাকে ‘প্রবলভাবে পুনরাবৃত্তির দোষে দুষ্ট এবং বিরক্তিকর’-ও বলেন।

শেষ দু’বছর ধরেই বিজেপির বিভিন্ন কার্যকলাপ নিয়ে একাধিকবার সরব হয়েছেন শত্রুঘ্ন সিনহা। সরাসরি নাম করেই আক্রমণ করেছেন বিজেপির এক নম্বর ও দু’নম্বর কাণ্ডারী নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহকেও। শেষ কয়েকমাসে টুইটারে বিজেপিকে আক্রমণ করার সংখ্যাটি আরও বাড়িয়ে দেন তিনি।

যদিও৭২ বছরের এই অভিনেতার বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থাগ্রহণ না করে তাকে অগ্রাহ্য করার পথেই এগিয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি। এমনকি যে পটনা সাহিব লোকসভা কেন্দ্র থেকে জিতে তিনি সাংসদ হয়েছিলেন তিনি, সেখানেও এবারে তাকে আর দাঁড় করায়নি গেরুয়া শিবির। তাঁর স্থানে ওই কেন্দ্র থেকে দাঁড়িয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ। আরপর ওই কেন্দ্র থেকেই তার নির্দল হিসেবে দাঁড়ানোর সম্ভাবনা প্রবল হয়ে ওঠে। পরে তিনি সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে কংগ্রেসে যোগ দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *