চাওয়ালা চা বানানো ছেড়ে লুটেরাদের চৌকিদার হয়েছেন: মোদিকে মমতা

ভারত

(পশ্চিমবঙ্গ, ভারত) ‘চাওয়ালা এখন চা বানানো ছেড়ে লুটেরাদের চৌকিদার হয়েছেন। আর মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভোট চাইছেন।’ শনিবার পশ্চিমবঙ্গের আলিপুরদুয়ারে নির্বাচনী জনসভায় বিজেপির নেতা ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির উদ্দেশ্যে এ কথাগুলো বলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি।

একই দিন আসামে নির্বাচনী প্রচারণা চালান তিনি। রাজ্যের ধুবড়িতে এক জনসভায় যোগ দিয়ে বিজেপি সরকারের দুই বহুল বিতর্কিত ইস্যু জাতীয় নাগরিক তালিকা (এনআরসি) ও নাগরিক বিল (সিটিজেনশিপ বিল) নিয়ে কথা বলেন। আসামবাসীকে উদ্দেশকে তিনি বলেন, ‘আসামের জনগণকে বোকা বানাতে এনআরসি ও নাগরিক বিলের মুলা ঝুলিয়ে রেখেছে নরেন্দ্র মোদি সরকার।’ খবর এনডিটিভির।

পশ্চিমে ২০১১ সাল থেকে ক্ষমতায় রয়েছে মমতার দল তৃণমুল কংগ্রেস। এবারও রাজ্যের ৪২টি আসনের সবকটিতেই প্রার্থী দিয়েছে দলটি। দলের প্রার্থীদের পক্ষে গত কয়েক সপ্তাহ ধরে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন তৃণমুল প্রধান মমতা। শনিবার পশ্চিমবঙ্গে দুটি ও আসামে একটি জনসভায় যোগ দেন তিনি।

এদিন আলিপুরদুয়ারের বারোবিশায় বিরোধী বিজেপির সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘চৌকিদারির নামে দেশ বিকিয়ে দিচ্ছেন মোদি। চৌকিদার ঝুটা হ্যায়, চৌকিদায় লুটেরা হ্যায়। ও চৌকিদার দেশকে শেষ করে দেবে।’ তিনি বলেন, মোদির মতো চৌকিদার চাই না। উল্টে দিন, পাল্টে দিন। বিজেপিকে বদলে দিন। ভোট দিন তৃণমূল কংগ্রেসকে।’

উপস্থিত জনতার উদ্দেশ্যে মমতা বলেন, ‘যারা কিছু করে না, নির্বাচনের সময় মিথ্যে ভাঁওতা দেয়, আর হিন্দু-মুসলিম করে তাদের ভোট দিলে ঠকবেন।’ তিনি বলেন, জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়ে এবার কেন্দ্রে সরকার গড়তে নেতৃত্ব দেবে তৃণমুল। আরও বলেন, ‘ভোট দিন উন্নয়নের নিরিখে। আগে আপনাদের কাছে কেউ আসত না, খবর নিত না। এখন ভোট এসেছে। তাই এসে বলছে এটা করে দেব, ওটা করে দেব।

মোদিকে ‘মিথ্যুক’ আখ্যায়িত করে তিনি বলেন, মোদি একটা আস্ত মিথ্যুক। গত পাঁচ বছর ধরে একের পর এক মিথ্যে বলে যাচ্ছেন তিনি। ২০১৪ সালের ভোটের সময় দেয়া একটা প্রতিশ্র“তিও তিনি পূরণ করেননি।’

আলিপুরদুয়ারের পর আসামে ছুটে যান মমতা। যোগ দেন ধুবড়ির জনসভায়। এ রাজ্যের ১৪টি আসনের মধ্যে এবার ৯টিতে প্রার্থী দিয়েছে তার দল তৃণমুল। শুরুতেই তিনি তোলেন বিতর্কিত এনআরসি ও নাগরিক বিলের প্রসঙ্গ। বলেন, ‘এনআরসি একটা গভীর ষড়যন্ত্র। নাগরিক বিলের নামে জনগণকে বোকা বানাতে চাইছেন মোদি। আমরা সেটা কখনও হতে দেব না।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *