নির্বাচনে জিতলে পশ্চিমতীরে অবৈধ বসতি আরও বাড়াবেন নেতানিয়াহু

মধ্যপ্রাচ্য

(তেলআবিব, যুক্তরাষ্ট্র) নির্বাচনে জয়লাভ করলে অবরুদ্ধ পশ্চিমতীরে বসতি বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। তিনি বলেন, বসতি গড়ার পরিকল্পনা পরবর্তী ধাপে নিয়ে যাবেন তিনি। আগামী মঙ্গলবার (৯ এপ্রিল) ইসরাইলের নির্বাচন। ইতিমধ্যে দখলকৃত গোলান মালভূমিতে ২ লাখ ৫০ হাজার ইসরাইলিকে পুনর্বাসনের পরিকল্পনা শুরু করেছে তার সরকার।

নিজস্ব ভূমি থেকে ফিলিস্তিনিদের উচ্ছেদ করে ১৯৪৮ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় ইহুদি রাষ্ট্র ইসরায়েল। ১৯৬৭ সালের আরব যুদ্ধের পর থেকে ইসরায়েল পূর্ব জেরুজালেম দখল করে রেখেছে। ফিলিস্তিনিরা চায় পশ্চিম তীরে একটি স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে এবং পূর্ব জেরুজালেমকে এর রাজধানী বানাতে। পূর্ব জেরুজালেমকে নিজেদের অবিভাজ্য রাজধানী বলে দাবি করে থাকে ইসরায়েল।

অবশ্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় ইসরায়েলের দখলদারিত্বকে স্বীকৃতি দেয় না। পশ্চিম তীর ও পূর্ব জেরুজালেমে অবৈধভাবে নির্মিত ১০০টিরও বেশি বসতিতে প্রায় সাড়ে ৬ লাখ ইসরায়েলি বসবাস করে। এই দখলদারিত্বের বিরুদ্ধে ফিলিস্তিনি জনতার প্রতিরোধকে সন্ত্রাসবাদ আখ্যা দিয়ে আসছে ইসরায়েল।

নেতানিয়াহু বলেন, ‘আপনারা আমাকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন, আমরা পরবর্তী ধাপে যাবো কি না, আমি আপনাদের বলছি আমরা পরের ধাপে যাচ্ছি।’ তিনি বলেন, আমি আমাদের সার্বভৌমত্বের পরিধি বাড়াবো। ফিলিস্তিনি নেতা মাহমুদ আব্বাসের এক মুখপাত্র জানান, এই ঘোষণায় কিছু যায় আসে না। এই বসতি অবৈধ ছিলো এবং সেগুলো সরিয়ে ফেলা হবে। আগামী মঙ্গলবার ইসরায়েলে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সেখানেই পুনঃনির্বাচিত হওয়ার লক্ষ্যে দাঁড়িয়েছেন নেতানিয়াহু।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *