গাজার বিশাল উৎসব আয়োজন করেছে থাইল্যান্ড

পূর্ব এশিয়া

(ব্যাংকক, থাইল্যান্ড) ওষধি গুণ সম্পন্ন গাজা বৈধ করার পর এবার গাজা উৎসবের আয়োজন করেছে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশ থাইল্যান্ড। দেশটির রাজধানী ব্যাংকক থেকে কয়েক ঘন্টার পথ বুরিরাম শহরে শুক্রবার শুরু হয়েছে এই উৎসব। শেষ হবে রোববার। ইতিমধ্যে এই উৎসবে দেখা গেছে উপচে পড়া ভিড়। বৌদ্ধ সন্ন্যাসী থেকে শুরু করে গ্রামের সাধারণ মানুষ দল বেধে আসছে এ উৎসবে। আর জানছে ঐতিহ্যবাহী ওষধি বৃক্ষ গাজার নানা গুণাগুণ। খবর এএফপির।

যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া, বেলজিয়ামসহ মোট দশটি দেশে এ পর্যন্ত গাঁজাকে বৈধ করা হয়েছে। গত বছরই গাঁজা ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে থাইল্যান্ড সরকার৷ এশিয়ার প্রথম দেশ হিসেবে জনগণকে গাঁজা ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে দেশটির সংসদ।তবে গাঁজা সেখানে আপাতত গবেষণায় এবং ঔষধ বানানোর ক্ষেত্রে ব্যবহার হবে।

দেশটির সংসদে ১৯৭৯ সালের মাদক নিয়ন্ত্রণ আইন সংশোধনের মাধ্যমে এ বিষয়ে একটি বিল পাশ হয়েছে। দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার দেশ থাইল্যান্ডে ১৯৩০ সাল পর্যন্ত শারীরিক ব্যথা ও ক্লান্তি দূর করার জন্য গাঁজা সেবন করা ছিল একটি প্রচলিত রীতি৷ পরে ১৯৩৫ সালে গাঁজা সেবন, পরিবহন কিংবা বাজারজাতকরণ বিষয়ে আইনি নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছিল৷

সে সময় দেশটির উপ-প্রধানমন্ত্রী প্রজিন জুন্টং সাংবাদিকদের জানান, ‌জাতীয় আইন পরিষদের পক্ষ থেকে এটি থাইল্যান্ড সরকার ও তার জনগণের জন্য নববর্ষের উপহার। আগামী বছর আইনটি বাস্তবায়নের পর গাঁজা উৎপাদন ও বাজারজাতকরণ বিষয়ে চিন্তাভাবনা করবে সরকার। এশিয়ার আরেক উন্নত দেশ মালয়েশিয়াও গাজাকে ওষধি কাজে ব্যবহারের অনুমোদন দিতে পারে মনে করা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *