হাতকড়া ও চোখ বাঁধা অবস্থায় ফিলিস্তিনি কিশোরকে গুলি ইসরাইলি বাহিনীর

মধ্যপ্রাচ্য

(রামাল্লা, ফিলিস্তিন) অধিকৃত পশ্চিম তীরের এক ফিলিস্তিনি কিশোরকে হাতকড়া পরানো এবং চোখ বাঁধা অবস্থায় গুলি করেছে ইসরাইলি বাহিনী। উদ্দেশ্য ছিল হত্যা করা। কিন্তু ভাগ্যক্রমে বেঁচে গেছে সে। ওই কিশোর অভিযোগ করে বলেছে, গত সপ্তাহে তাকে হত্যার জন্য গুলি করা হয়। এ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে ইসরাইলি সেনাবাহিনী। খবর আনাদোলু এজেন্সির।

গত সপ্তাহে গ্রেপ্তার করা হয় ১৬ বছর বয়সী ওসামা আলি আল-বাদান। ওই সময় সে বেথেলহেমের তোকু শহরে বিক্ষোভ করছিল। ফিলিস্তিনি এক নারীর ওপর একজন অবৈধ বসতি স্থাপনকারী গাড়ি তুলে দেয়ার প্রতিবাদে ওই বিক্ষোভের আয়োজন করা হয়েছিল।

বার্তা সংস্থা আনাদোলু এজেন্সিকে আল-বাদান বলেন, আমার হাতে হাতকড়া পরানো ছিল এবং চোখ বাঁধা ছিল। যখন আমি পালানোর চেষ্টা করি তখন ইসরায়েলি বাহিনীর সদস্যরা আমার ওপর গুলিবর্ষণ করে। তিনি অভিযোগ করে বলেন, ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর সদস্যরা ‘তাকে ইচ্ছাকৃতভাবে হত্যার চেষ্টা করে।’

পরে স্থানীয় ব্যক্তিরা আল-বাদানকে উদ্ধার করে এবং তাকে হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যায়। আল-বাদানের বাবা জানিয়েছেন, তার ছেলের শারীরিক অবস্থা এখন স্থিতিশীল। কিন্তু চিকিৎসার জন্য তাকে কয়েক সপ্তাহ হাসপাতালে থাকতে হবে। ইসরাইলি সেনাবাহিনী জানিয়েছে, তারা ওই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *