প্রেম পেতে নিজ শরীরে পেট্রোল ঢাললেন প্রেমিক, ম্যাচ ঠুকে দিলেন প্রেমিকা

ভারত

কিশোরী প্রেমিকাকে বিয়েতে রাজি করাতে ‘কৌশল’ এটেছিল এক প্রেমিক। চেয়েছিল তাকে ভয় দেখিয়ে কাজ হাসিল করতে। নিজের শরীরে পেট্রোল ঢেলে দেয় সে। কিন্তু সেই কৌশলই তার বিপদের কারণ হয়ে দাঁড়ায়। প্রেমিকা বিয়ে করতে রাজি তো হয়ই নি। উল্টো ম্যাচের কাঠি ঠুকে ছুঁড়ে দেয় প্রেমিকের শরীরে। দাউদাউ করে জ্বলতে থাকে আগুন। ভারতের উত্তরপ্রদেশের লক্ষ্ণৌর হাসানগঞ্জে গত ২০ এপ্রিলে ঘটে অমানবিক ও হƒদয়বিদারক ঘটনাটি। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়ার।

পুলিশ জানায়, ২০ বছর বয়সী ওই যুবকের নাম অরবিন্দ নিশাদ। তার বাড়ি হাসানগঞ্জ থানার খাদরা এলাকায়। বর্তমানে ৬০ শতাংশ পোড়া শরীর নিয়ে হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে সে। ঘটনায় শনিবার হাসানগঞ্জ থানায় মামলা করেছেন নিশাদের মা। দগ্ধ নিশাদের বরাত দিয়ে হাসানগঞ্জ থানার পুলিশ কর্মকর্তা ধীরাজ শুক্লা জানান, সম্প্রতি ১৫ বছর বয়সী ৯ম শ্রেণির ওই ছাত্রীকে বিয়ের প্রস্তাব দেয় নিশাদ। কিন্তু মেয়ের বয়স কম হওয়ায় এখন বিয়েতে রাজি ছিল না তার পরিবার। কিন্তু নাছোড়বান্দা নিশাদ। নানাভাবে বিয়ের জন্য চাপ দিতে থাকে।

এ বিষয়ে আলোচনা করতে গত ২০ এপ্রিল মেয়েটি তার মায়ের সঙ্গে নিশাদের বাড়িতে আসে। এ সময় তার মা-বাবা বাড়িতে ছিল না। মেয়ে পূর্ণবয়স্ক হলে নিশাদের সঙ্গেই বিয়ে দেয়ার প্রতিশ্র“তি দেন মেয়ের মা। তবে এতে রাজি হয়নি নিশাদ। এখনই বিয়ের জন্য চাপ দিতে থাকে সে। এক পর্যায়ে নিজের শরীরে পেট্রোল ঢেলে মেয়েটিকে বিয়েতে রাজি হওয়ার জন্য বলে। এ সময় মেয়েটি বিয়েতে রাজি তো হয়ইনি, উল্টো ম্যাচের কাঠি ছুঁড়ে তার শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয়। দাউ দাউ করা আগুন জ্বললেও না নিভিয়ে স্থান ত্যাগ করে মা ও মেয়ে।

ছেলের চিৎকার শুনে দ্রুতই বাড়ি ফিরে আসেন নিশাদের মা। এসময় প্রতিবেশিদের সহযোগিতায় নিশাতকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান তিনি। বর্তমানে নিশাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। শুক্লা বলেন, ২০ এপ্রিলের এই ঘটনার পর ২২ এপ্রিল পুলিশ হাসপাতালে গিয়েছিল। পরে নিশাদ কথা বলতে রাজি হওয়ায় ২৪ এপ্রিল পুলিশ তার বক্তব্য রেকর্ড করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *