অভ্যুত্থান চেষ্টার পর ভেনেজুয়েলায় সামরিক হস্তক্ষেপের ইঙ্গিত যুক্তরাষ্ট্রের

আমেরিকা

(কারাকাস, ভেনিজুয়েলা) অভ্যত্থানে ব্যর্থতার পর ভেনেজুয়েলায় এবার সামরিক হস্তক্ষেপের ইঙ্গিত দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও সামরিক হস্তক্ষেপ বিবেচনা করছেন বলে জানিয়েছেন মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পম্পেও।ফক্স বিজনেস নেটওয়ার্ককে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেন, ‘প্রেসিডেন্ট এই বিষয়ে অত্যন্ত স্বচ্ছ এবং অনন্য রকম অটল। সামরিক পদক্ষেপের সম্ভাবনা রয়েছে। যদি তার দরকার হয় তাহলে যুক্তরাষ্ট্র তা করবে।’ ভেনেজুয়েলা পরিস্থিতি নিয়ে বুধবার রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গেও আলোচনা করেছেন তিনি।

এর আগে এক টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন জানান, ভেনেজুয়েলা পরিস্থিতি নিয়ে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে আলাপ করেছেন মাইক পম্পেও। মাদুরোর পরিকল্পনায় রাশিয়ার সম্পৃক্ততা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র কতটুকু জানে তা পরিষ্কার না করলেও বোল্টন বলেন ভেনেজুয়েলায় মস্কোর হস্তক্ষেপকে স্বাগত জানাবে না যুক্তরাষ্ট্র।

নির্বাচনি কারচুপির অভিযোগ আর অর্থনৈতিক সংকটের বিরুদ্ধে এ বছরের শুরুতে ভেনেজুয়েলায় বিক্ষোভ শুরু হয়। বিক্ষোভের সুযোগে ২৩ জানুয়ারি নিজেকে অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করেন বিরোধীদলীয় নেতা হুয়ান গুইদো। প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোর সরকারকে অবৈধ দাবি করে নিজেকে বৈধ অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করেন তিনি।

মঙ্গলবার এক ভিডিও বার্তায় আকস্মিক অভ্যুত্থানের ঘোষণা দেন গুইদো। ভিডিওতে তার সঙ্গে বেশ কয়েকজন সামরিক সদস্যকেও দেখা যায়। এই অভ্যুত্থানে সমর্থন ঘোষণা করে যুক্তরাষ্ট্র। বুধবার ওই অভ্যুত্থান প্রচেষ্টা নস্যাতের দাবি করেন প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো। তিনি বলেন, ভেনেজুয়েলা কখনোই সাম্রাজ্যবাদী শক্তির কাছে নত হবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *