চতুর্থবারের মতো বিয়ে করলেন থাই রাজা; দেহরক্ষীকে দিলেন রানির মর্যাদা

পূর্ব এশিয়া

(ব্যাংকক, থাইল্যান্ড) ফের বিয়ে করলেন থাইল্যান্ডের রাজা মাহা ভাজিরালংকর্ন। এবার নিজের ব্যক্তিগত দেহরক্ষী বাহিনীর উপপ্রধানকে বিয়ে করে রানির মর্যাদা দিয়েছেন তিনি। শনিবার তার সিংহাসনে আরোহণের বিস্তৃত অনুষ্ঠান হতে যাচ্ছে। তার আগে আগে সবাইকে অবাক করে দেয়া এই ঘোষণাটি এল। ওই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তার রাজকীয় পদকে দেবতুল্য বলে ঘোষণা করা হবে।

বিবিসি জানিয়েছে, রাজার বিয়ের অনুষ্ঠানে উপস্থিত অতিথিদের মধ্যে থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী ও সামরিক জান্তা সরকারের প্রধান প্রায়ুথ চান ওচা, রাজপরিবারের অন্যান্য সদস্যরা ও রাজপরিবারের উপদেষ্টারা উপস্থিতি ছিলেন। এর আগে ভাজিরালংকর্ন আরও তিনবার বিয়ে করেছিলেন। ওই তিনটি বিয়েই বিচ্ছেদের মধ্যে দিয়ে শেষ হয়। তার সাতটি সন্তান আছে।

২০১৬ সালে রাজা ভ‚মিবল আদুলিয়াদেজের মৃত্যুর পর দেশটির সাংবিধানিক রাজা হন ৬৬ বছরের মহা ভাজিরালংকর্ন। রাজা ভাজিরালংকর্ন এর আগে তিনি তিনবার বিয়ে করেছেন এবং তাদের ছাড়াছাড়িও হয়ে গেছে। তার সাতটি সন্তান রয়েছে। রাজকীয় এক ঘোষণায় বলা হয়েছে, ‘রাজা ভাজিরালংকর্ন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যে, জেনারেল সুথিদা ভাজিরালংকর্ন ন আয়ুদাহকে রানি সুদিথা হিসাবে ঘোষণা দিচ্ছেন এবং তিনি রাজ পরিবারের নিয়মানুযায়ী রাজকীয় পদবি ও মর্যাদা ভোগ করবেন।’’

রাজা ভাজিরালংকর্নের দীর্ঘদিনের সঙ্গী রানি সুদিথা। বিভিন্ন অনুষ্ঠানে তাদের একসঙ্গে বহুবার দেখা গেছে, যদিও তাদের সম্পর্কের বিষয়টি কখনো আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকার করা হয়নি। বুধবার রাতে তাদের বিয়ে অনুষ্ঠানের ভিডিও প্রচার করা হয় থাই টেলিভিশনে। সেখানে রাজ পরিবারের অন্যান্য সদস্য এবং রাজ উপদেষ্টাদের দেখা যাচ্ছে। ভিডিওতে দেখা যায়, রানি সুথিদার মাথায় পবিত্র পানি ঢেলে দিচ্ছেন রাজা ভাজিরালংকর্ন। এরপর তারা বিয়ের রেজিস্টারে স্বাক্ষর করেন।

থাই এয়ারলাইন্সের সাবেক বিমানবালা সুথিদা তিদজাইকে নিজের দেহরক্ষী বাহিনীর উপ প্রধান হিসাবে ২০১৪ সালে নিয়োগ দেন ভাজিরালংকর্ন। ২০১৬ সালের ডিসেম্বরে তাকে সেনাবাহিনীর একজন পূর্ণ জেনারেল হিসাবে পদোন্নতি দেন রাজা ভাজিরালংকর্ন। তার পিতা রাজা ভ‚মিবল আদুলিয়াদেজ ৭০ বছর ধরে থাইল্যান্ডের রাজা ছিলেন। তিনি ছিলেন বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘ সময় শাসনকারী রাজা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *