গাজায় ফের ইসরাইলের ভয়াবহ বিমান হামলা, নিহত ৭

মধ্যপ্রাচ্য লিড নিউজ

(তেলআবিব, ইসরাইল) ফিলিস্তিনের গাজায় ফের বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরায়েলি সেনাবাহিনী। সেই সঙ্গে চালিয়েছে ট্যাঙ্ক থেকে গোলাবর্ষণ। ইসরাইল লক্ষ্য করে হামাসের রকেট হামলার অজুহাতে এ হামলা চালানো হয়।  রয়টার্স বলেছে, শুক্রবার থেকে পাল্টাপাল্টি হামলা রোববার তৃতীয় দিনে গড়িয়েছে। এতে দুপক্ষের অন্তত সাত জন নিহত হয়েছে।

রোববার গাজা থেকে ছোড়া একটি রকেটের বিস্ফোরণে এক বেসামরিক ইসরায়েলি নিহত আর ইসরায়েলি হামলায় দুই ফিলিস্তিনি বন্দুকধারী নিহত হয় বলে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। শনিবার দিবাগত রাতে গাজার সীমান্তবর্তী ইসরায়েলি এলাকাগুলোতে বারবার রকেট হামলার সাইরেন বেজে ওঠে। এতে ওই এলাকার ইসরায়েলিদের রাতভর আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে যাওয়া-আসার মধ্যে থাকতে হয়। এ সময় ইসরায়েলি রকেট প্রতিরোধী ক্ষেপণাস্ত্রগুলোকে আকাশে ফিলিস্তিনি রকেট নিষ্ক্রিয় করতে দেখা যায়।

ইসরায়েলি পুলিশ জানিয়েছে, গাজা থেকে ছোড়া রকেটগুলির একটি আশকেলন শহরের একটি বাড়িতে আঘাত হেনেছে, এতে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। অপরদিকে ইসরায়েলি বোমাবর্ষণে গাজার ভবনগুলো কেঁপে কেঁপে উঠেছে এবং ফিলিস্তিনিরা পালিয়ে আড়াল নিতে বাধ্য হয়েছে বল জানিয়েছেন স্থানীয়রা। রোববার ভোরের আগে তাদের দুই সদস্য নিহত হয়েছেন বলে ফিলিস্তিনি সশস্ত্রগোষ্ঠী ইসলামি জিহাদ জানিয়েছে।

শুক্রবার ইসলামিক জিহাদের এক স্নাইপার ইসরায়েলি সেনাদের দিকে গুলি ছোড়ার পর গাজা সীমান্তে নতুন করে সহিংসতার সূত্রপাত হয়। ওই স্নাইপারের গুলিতে তাদের দুই সেনা আহত হয়েছেন বলে ভাষ্য ইসরায়েলি সামরিক বাহিনীর। এর প্রতিক্রিয়ায় গাজায় বিমান হামলা চালায় ইসরায়েল। এতে গাজা নিয়ন্ত্রণকারী ফিলিস্তিনি রাজনৈতিক গোষ্ঠী হামাসের দুই যোদ্ধা নিহত হন।

একইদিন ইসরায়েলি সীমান্তের কাছে প্রতিবাদরত দুই ফিলিস্তিনিকেও ইসরায়েলি বাহিনী গুলি করে হত্যা করে বলে জানিয়েছেন ফিলিস্তিনি কর্মকর্তারা। শনিবার থেকে হামাস ও ইসলামিক জিহাদের যোদ্ধারা ইসরায়েলের গ্রাম ও শহরগুলো লক্ষ্য করে চারশতাধিক রকেট ছুড়েছে বলে জানিয়েছে ইসরায়েলি সামরিক বাহিনী। এর জবাবে গাজার প্রায় ২০০টি লক্ষ্যে পাল্টা গোলা ও বিমান হামলা চালানো হয়েছে বলে জানিয়েছে তারা।

এক বিবৃতিতে ইসলামিক জিহাদ জানিয়েছে, শুক্রবারের হামলা এবং কায়রোর মধ্যস্থতায় হওয়া আগের দফা সমঝোতা বাস্তবায়নে ইসরায়েলের সময় ক্ষেপণের প্রতিক্রিয়ায় রকেটগুলো ছোড়া হয়েছে।শনিবার ইসরায়েলি সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র লেফটেনেন্ট কর্নেল জনাথন কনরিকাস জানিয়েছেন, হামলার মাত্রা আরও বাড়ানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে ইসরায়েল। ইসলামিক জিহাদ সীমান্তকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করছে আর হামাস তাদের নিয়ন্ত্রণ করতে ব্যর্থ হয়েছে বলে অভিযোগ তার।

অপরদিকে একইদিন এক যৌথ বিবৃতিতে হামাস ও ইসলামিক জিহাদ বলেছে, ‘শত্রু যদি যুদ্ধ চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে তাহলে আমাদের প্রতিক্রিয়া আরও বিস্তৃত ও আরও যন্ত্রণাদায়ক হবে।’ মুসলিমদের পবিত্র মাস রমজান ও ইসরায়েলের স্বাধীনতা দিবসের ছুটির ঠিক আগে ইসরায়েল-গাজা সংঘাত ফের উস্কে উঠল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *