ভারতের নির্বাচন কমিশনে যুবকের রক্তে লেখা চিঠি

ভারত

(নয়াদিল্লি, ভারত) বিতর্কিত নানা পদক্ষেপ ও মন্তব্যের কারণে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করে আসছেন দেশটির জনগণ। এবার তার বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশন বরাবর একটি চিঠি লিখেছেন উত্তরপ্রদেশের আমেথির এক যুবক।

চলতি সপ্তাহে কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর বাবা প্রয়াত সাবেক প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্থী কুরুচিকর মন্তব্য করাই হাত কেটে রক্ত দিয়ে চিঠি লিখেছেন মনোজ কাশ্যপ নামে শাহগড়ের ওই তরুণ। চিঠিতে রাজীব গান্ধীর বিরুদ্ধে আপত্তিকর মন্তব্যের নিন্দার পাশাপাশি ফের এমন মন্তব্য না করার আহŸান জানিয়েছেন তিনি। বুধবার এ খবর দিয়েছে এনডিটিভি।

চিঠিকে কাশ্যপ লিখেছেন, রাজীব গান্ধীকে নিয়ে মোদির এই বক্তব্যে তিনি আতঙ্কিত। চিঠিতে তিনি লেখেন, ‘আমেতির মানুষের আবেগে আঘাত করেছেন নরেন্দ্র মোদি। রাজীব গান্ধীর সময়েই দেশে আঠারো বছর বয়সে ভোটাধিকার দেয়া হয়েছিল। দেশে পঞ্চায়েত রাজ কায়েম হয়েছিল তার নেতৃত্বেই।

নরেন্দ্র মোদি যে কথা বলেছেন তাতে আমেতিকে অপমান করা হয়েছে।’ চিঠিতে কাশ্যপ আরও লেখেন, বিজেপির সাবেক নেতা ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারি বাজপেয়ী পর্যন্ত রাজীব গান্ধীর প্রশংসা করে গেছেন। কোনো রাজনৈতিক পরিচয়ে নয়। আমেথির আবেগ জুড়ে রয়েছেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী। আর বর্তমান প্রধানমন্ত্রী সেই আবেগকেই আঘাত করেছেন।’

২০১৪ সালের নির্বাচনের আগে থেকেই নির্বাচনী প্রচারে রাহুল গান্ধী ও কংগ্রেসকে পরিবারতন্ত্র নিয়ে খোঁচা দিয়ে আসছেন মোদি। এবারও সেই ধারা অব্যাহত রেখেছেন তিনি। কয়েকদিন আগে উত্তরপ্রদেশের প্রতাপ গড়ের একটি জনসভায় হঠাৎই সরাসরি আক্রমণ করে বসেন রাহুল গান্ধীর বাবা রাজীব গান্ধীকে। রাহুলকে উদ্দেশ করে বলেন, ‘আপনার বাবাকে তার পারিষদরা মিস্টার ক্লিন বলে ডাকত। কিন্তু তার জীবন শেষ হয়েছিল ১ নম্বর ভ্রষ্টাচারী হিসেবে।’

প্রধানমন্ত্রীর এই মন্তব্যের পর ভারতের রাজনৈতিক অঙ্গনে বিতর্ক ও তোলপাড় শুরু হয়ে যায়। –বিরোধী দলগুলো অভিযোগ তোলে, মৃত একজন ব্যক্তিকে টেনে মোদী নিম্নরুচির পরিচয় দিয়েছেন। প্রতিক্রিয়া জানান রাহুল গান্ধী ও প্রিয়ঙ্কা গান্ধীও। টুইট করে মোদির ওই বক্তব্যের নিন্দা করেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিও। এ বার রক্ত দিয়ে লেখা চিঠি পৌঁছে গেল নির্বাচন কমিশনে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *