মধ্যপ্রাচ্যে ইরান-যুক্তরাষ্ট্র উত্তেজনায় বাড়ছে তেলের দাম

মধ্যপ্রাচ্য

মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন রণতরী ও ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েন নিয়ে ইরান-যুক্তরাষ্ট্র উত্তেজনার ফলে তেলের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। অপরিশোধিত ব্রেন্ট তেলের প্রতি ব্যারেলের দাম ১ দশমিক ৯ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৭১.৭৫ ডলার। আর মার্কিন অপরিশোধিত তেলের দাম ২ দশমিক ৬ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৬২.৪৮ ডলার। খবর মধ্যপ্রাচ্যবিষয়ক সংবাদমাধ্যম মিডল ইস্ট মনিটরের।

তেলের মূল্যবৃদ্ধিতে ইরান-মার্কিন উত্তেজনার পাশাপাশি বিশ্বের সবচেয়ে বৃহত্তম তেল উৎপাদনকারী কোম্পানি সৌদি আরামকোর ট্যাংকার ও তেলে উত্তোলন কেন্দ্রে হুথি বিদ্রোহীদের হামলার ভূমিকা রয়েছে। মঙ্গলবার সকালে সৌদি আরবের পশ্চিম উপকূলে ইয়ানবু বন্দরের একটি পাইপলাইনে ড্রোন হামলা চালানো হয়। এর আগে সংযুক্ত আরব আমিরাতের উপকূলে দুটি সৌদি তেলবাহী ট্যাংকার নাশকতার শিকার হয়।

সৌদি আরবের জ্বালানিমন্ত্রী খালেদ আল-ফলিহ জানান, সৌদি আরামকো ক্ষয়ক্ষতি নিরুপণ করছে এবং তা মেরামত করবে। তিনি দাবি করেছিলেন, এতে করে তেলের রফতানিতে কোনও প্রভাব পড়বে না।

সৌদি স্থাপনার হামলার আগে থেকেই মধ্যপ্রাচ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছিল। মধ্যপ্রাচ্যে ও ভূমধ্যসাগরে যুক্তরাষ্ট্র জঙ্গিবিমানবাহী রণতরী ও অত্যাধুনিক প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েনের পর থেকে এই উত্তেজনার শুরু। রবিবার আমিরাতের উপকূলে চারটি ট্যাঙ্কারে বিস্ফোরণের পর যুক্তরাষ্ট্র ও ইরানের মধ্যে উত্তেজনা আরও বৃদ্ধি পায়।

মার্কিন তদন্তকারীদের বিশ্বাস ইরান অথবা তাদের সমর্থিত কোনও গ্রুপ এই বিস্ফোরণের সাথে জড়িত। তবে তার কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি। আর তেহরান বিস্ফোরণে নিজেদের সম্পৃক্ততার অভিযোগ অস্বীকার করে নিরপেক্ষ তদন্তের আহ্বান জানিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *