রাশিয়ার সঙ্গে যৌথভাবে এস-৫০০ ক্ষেপণাস্ত্র তৈরি করবে তুরস্ক

ইউরোপ

(আঙ্কারা, তুরস্ক) তুরস্কের রাষ্ট্রপতি রিসেপ তাইপ এরদোগান বলেছেন, তুরস্ক ও রাশিয়া যৌথভাবে এস-৫০০ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা তৈরি করবে। রাশিয়ার কাছে থেকে তুরস্কের এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র ক্রয়ের বিষয়টি নিয়ে ইতোমধ্যেই আঙ্কারার সাথে ওয়াশিংটনের উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। রাশিয়ার কাছ থেকে এই ক্ষেপণাস্ত্র কিনলে তুরস্কের বিরুদ্ধে অবরোধ দেয়া হবে বলে হুমকি দিয়ে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। খবর আনাদোলু এজেন্সির

শনিবার ইস্তাম্বুলে এরদোগান বলেন, ‘তুরস্কের এস-৪০০ কেনা থেকে ফিরে আসার কোন সম্ভাবনাই নেই। এ ব্যাপারে চুক্তি হয়ে গেছে।’ তিনি আরও বলেন, এস-৪০০ এরপর যৌথভাবে এস-৫০০ তৈরি করা হবে। বিমানবিধ্বংসী এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র নিয়েই যুক্তরাষ্ট্রের আপত্তি। এ ক্ষেপণাস্ত্রটি নিজেদের যুদ্ধবিমানের জন্য হুমকি মনে করে যুক্তরাষ্ট্র। বিশেষ করে নিজেদের এফ-৩৫ বিমানের জন্য ক্ষেপণাস্ত্রটি হুমকি বলে মনে করে দেশটি।

রাশিয়ার এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র একই সঙ্গে ৮০টি লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত করতে সক্ষম। তুরস্কের ক্ষেপণাস্ত্র কেনা নিয়ে উত্তেজনার ভেতর এরই মধ্যে দেশটির সঙ্গে এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান-সংক্রান্ত কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। যুক্তরাষ্ট্র চায়, রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্রের বদলে তুরস্ক তাদের প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র ক্রয় করুক।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপের সঙ্গে সম্পর্কের টানাপড়েনের ফলে তুরস্ক রাশিয়ার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক স্থাপন করছে। ন্যাটোভুক্ত ২৯ দেশের মধ্যে তুরস্কের সেনাবাহিনী দ্বিতীয় বৃহত্তম। সোভিয়েত ইউনিয়ন আমলে ইউরোপ ও যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষার স্বার্থে এ জোট গঠন করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *