৩০ মে শপথ, যারা থাকতে পারেন মোদির নতুন মন্ত্রিসভায়

ভারত লিড নিউজ

(নয়াদিল্লি, ভারত) আগামী ৩০ মে দ্বিতীয় মেয়াদে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন নরেন্দ্র মোদি। এনডিএ জোট সরকারের মন্ত্রিসভার সদস্য চূড়ান্ত করতে মঙ্গলবার বিজেপি সভাপতি অমিত শাহের সঙ্গে দীর্ঘ বৈঠক করেছেন তিনি। মোদির বাসভবনে পাঁচ ঘণ্টার এই বৈঠকে নতুন মন্ত্রিসভার সম্ভাব্য সদস্যদের বিষয়ে আলাপ হয়েছে বলে জানিয়েছে দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।

আনুষ্ঠানিকভাবে এই বৈঠকের আলোচ্যসূচি নিয়ে কেউ কোনও কথা বলেননি। তবে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমটি বৈঠকের আলোচনায় স্থান পাওয়া বেশ কয়েক জন নেতার কথা জানিয়েছে যারা মন্ত্রিসভায় ঠাঁই পেতে পারেন। গত ২৩ মে ভারতের ১৭তম লোকসভা নির্বাচনের  বিজেপি নেতৃত্বাধীন জোটের বিজয় নিশ্চিত হওয়ার পরই নতুন মন্ত্রিসভায় অমিত শাহের যুক্ত হওয়া নিয়ে গুঞ্জন শুরু হয়।

বিজেপি নেতাদের একাংশের ধারণা দ্বিতীয় মেয়াদে দল এবং জোটের বিজয় নিশ্চিতে সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকার করেছেন অমিত শাহ। তবে দলের আরেক অংশ বলছে এখনই দলের দায়িত্ব ছাড়া উচিত হবে না তার। তবে ৩০ মে পরবর্তীতে নিজের ভূমিকা নিয়ে মুখ খোলেননি অমিত।

নির্বাচনের বিজয় নিশ্চিত হওয়ার পর বিজেপির রাজ্য সভাপতিসহ বিভিন্ন নেতাদের কাছে মন্ত্রিসভায় সম্ভাব্য নেতাদের তালিকা চেয়ে পাঠান অমিত শাহ। পশ্চিমবঙ্গ, ওড়িশ্যা, তেলেঙ্গানার মতো যেসব রাজ্যে বিজেপি’র নতুন উত্থান ঘটেছে সেসব রাজ্যে মন্ত্রির সংখ্যা বাড়াতে আগ্রহী বিজেপি। জোটভুক্ত পার্লামেন্টারি দলের বৈঠকে শিব সেনা, জেডিইউ, এলজেপি, আকালি দল ও এআইএডিএমকে দলকে সম্মানজনক অবস্থানে রাখার প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়েছে।

বিজেপির অভ্যন্তরে গুঞ্জন রয়েছে কংগ্রেসের পারিবারিক আসন বলে পরিচিত আমেথিতে রাহুল গান্ধীকে হারানো স্মৃতি ইরানিকে এবার মন্ত্রিসভায় গুরুত্বপূর্ণ পদে বসানো হতে পারে। তবে নতুন সরকারে আগের মেয়াদের গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রী সুষমা স্বরাজের অন্তর্ভুক্তি এখনও চূড়ান্ত নয়। আগের সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা এবার স্বাস্থ্যগত কারণে লোকসভা নির্বাচনেই অংশ নেননি।

এছাড়া পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল কংগ্রেস থেকে বিজেপিতে যোগ দেওয়া মুকুল রায় এবারে মোদির মন্ত্রিসভায় ঠাঁই পেতে পারেন। পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির উত্থানে তার ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করে দলটি। এছাড়াও বিজেপির আরও এক বা দুইজন গুরুত্বপূর্ণ কর্মকর্তা মন্ত্রিসভায় স্থান পেতে পারেন।

আগামী ৩০ মে মোদির দ্বিতীয় মেয়াদে শপথ অনুষ্ঠান রাষ্ট্রপতি ভবনে আয়োজিত একক বড় অনুষ্ঠানের নতুন রেকর্ড গড়তে যাচ্ছে। রাষ্ট্রপতি ভবনের সামনের চত্বরে এই অনুষ্ঠানে প্রায় ৬ হাজার অতিথি যোগ দেবেন বলে প্রস্তুতি শুরু হয়েছে।

এবারের অতিথি তালিকায় বিমসটেক দেশগুলো  ছাড়াও রয়েছে কিরগিজস্থান, ও মরিশাসের রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানেরা। এছাড়াও তালিকাতে আছেন রাজনৈতিক নেতৃবন্দ, কুটনীতিক, মুখ্যমন্ত্রী, অ্যাকাডেমিক, লেখক, তারকা, ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব, চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্বরাও। তবে গতবারের তালিকা থেকে এবারে থাকছেন না পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ, শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা, কিরগিজস্থানের প্রেসিডেন্ট সোরোনবে জিনবেকভ, মিয়ানমার প্রেসিডেন্ট উ উইন মিন্ট, মরিশাসের প্রধানমন্ত্রী প্রবীন্দ কুমার জুগনাথ, নেপালের প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা অলি, ভুটানের প্রধানমন্ত্রী লোটে সেরিং ও থাইল্যান্ডের কৃষি ও সমবায়মন্ত্রী গ্রিসাদা বুনরাচ শপথ অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *