ক্রাইস্টচার্চ হামলায় বেঁচে যাওয়া মুসল্লির কুরআন ছুঁয়ে শপথ গ্রহণ অস্ট্রেলীয় এমপির

এশিয়া প্যাসিফিক

মেলবোর্ন, অস্ট্রেলিয়া- ক্রাইস্টচার্চ মসজিদ হামলায় বেঁচে যাওয়া মুসল্লির কুরআন ছুঁয়ে শপথ গ্রহণ করলেন অস্ট্রেলীয় পার্লামেন্টের প্রথম মুসলিম সংসদ সদস্য লেবার পার্টির এদহাম নূরউদ্দীন হিউসিক (এড হিউসিক)। গত মঙ্গলবার হামলায় বেঁচে আসা মুসল্লী ফরিদ আহমদ এর ব্যক্তিগত কুরআন নিয়ে শপথ পাঠ করেন তিনি। এ নিয়ে চতুর্থবারের মত তিনি তার চিফলির আসন থেকে সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেন।

এড হিউসিক বলেন,

‘ আমি ফরিদের অনুমতি চেয়েছিলাম কারণ এর ফলে কিছুটা  হলেও আমাদের উভয় দেশের মধ্যে একটি একক ও অটল প্রতিশ্রুতির ভিত্তিতে উভয়ের মধ্যকার সম্পর্ককে শক্তিশালী করবে, এবং যারা আমাদের আলাদা করতে চায় তাদের মোকাবেলা করা সহজ হবে।’

এর আগের সপ্তাহে নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টটচার্চে এড হিউসিক ফরিদ আহমদের সাথে সাক্ষাত করেন। এর আগে তিনি সেখানকার লিনউড ইসলামিক সেন্টার ও আল নূর মসজিদ পরিদর্শন করেন, যেখানে গত মার্চে অস্ট্রেলিয়ায় জন্মগ্রহণকারী সার্ব বংশোদ্ভুত এক শেতাঙ্গবাদী সন্ত্রাসীর হামলায় ৫১জন মুসল্লী প্রাণ হারায়। এই হামলায় জনাব ফরিদ আহমদের স্ত্রী হুসনা আহমদও নিহত হন।

হামলার সময় হুসনা আহমদ মসজিদে অবস্থানরত নারী ও শিশুদের নিয়ে নিরাপদে বেরিয়ে এসেছিলেন। পরবর্তীতে তার হুইল চেয়ারে আবদ্ধ স্বামীকে বের করে আনার জন্য আল নূর মসজিদে গেলে তিনি পেছন থেকে মাথায় গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হন।

স্ত্রীর বিয়োগে শোকগ্রস্ত হলেও তিনি মনের মধ্যে আক্রোশ পুষে রাখেননি। এড হিউসিকের সাথে সাক্ষাতকালে তিনি জানান, তিনি অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে হামলাকারীর পরিবারের সাথে সাক্ষাত করতে চান এবং তাদেরকে হামলাকারীর কর্মকান্ডের জন্য হীনমন্যবোধ না করার জন্য সান্ত্বনা প্রদান করতে চান।

পাশাপাশি এই ঘটনায় অস্ট্রেলীয়দের সমবেদনা ও সংহতি প্রকাশের জন্য তিনি ধন্যবাদ জানান।  জনাব হিউসিক ফরিদ আহমদের সাথে তার কাটানো সময়কে তার জীবনের অবিস্মরণীয় মুহূর্ত ও অসাধারণ অভিজ্ঞতা হিসেবে বর্ণনা করেন। সাক্ষাতে তিনি জনাব আহমদের কাছে পার্লামেন্টে শপথ গ্রহণের জন্য তার ব্যক্তিগত কুরআনটি পাওয়ার জন্য আবেদন করেন। 

এড হিউসিক জানান, তিনি স্থানীয় লোকজনের সাথেও সাক্ষাৎ করেছেন যারা জনাব আহমদের ক্ষমার সক্ষমতায়  বিপুলভাবে প্রভাবিত। তিনি বলেন,

‘যেভাবে তিনি তার স্ত্রীকে হারিয়েছেন, সেভাবে স্ত্রীকে হারানোর অসহ্য যন্ত্রণায় ফরিদের পক্ষে স্বাভাবিক ছিল ক্রোধ ও তিক্ততায় নিজেকে আচ্ছন্ন করার। কিন্তু তিনি তার মানসিক শক্তির জোরে নিজেকে ঘৃণা থেকে ফিরিয়ে ক্ষমার আহবান জানান এবং সকল বিশ্বাসের মানুষের মাঝে শক্তিশালী বন্ধন তৈরির জন্য নিজেকে ব্যস্ত রাখেন।’

এড হিউসিক আরও বলেন,

‘আমি মনে করি সকলেই এই অনুপ্রেরণা ও উদ্দেশ্যের সাথে নিজেদের একাত্ম করতে পারে, একারণেই আমি  খুবই সৌভাগ্যবান তার দোয়া হিসেবে আমার শপথ অনুষ্ঠানে আহমদের পবিত্র কুরআনের কপিটি ব্যবহারের মাধ্যমে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *