কাশ্মীরে গণভোট দাবি পাকিস্তানের

পূর্ব এশিয়া লিড নিউজ

ইসলামাবাদ, পাকিস্তান- জম্মু-কাশ্মীরে গণভোট আয়োজন করতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে আহ্বান জানিয়েছেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মোহাম্মদ কুরেশি। চ্যালেঞ্জ জানিয়ে তিনি বলেছেন, গণভোট হলে ভারত কোনোভাবেই সংবিধানের ৩৭০ নম্বর অনুচ্ছেদ বিলোপ করতে পারবে না। সোমবার  মুলতানে এক সংবাদ সম্মেলনে মোদি এ চ্যালেঞ্জ জানান কোরেশি। খবর ডনের।

এক বিবৃতিতে কুরেশি বলেন, ‘আমি নরেন্দ্র মোদিকে কারফিউ তুলে নিতে চ্যালেজ্ঞ জানাচ্ছি। সব কাশ্মীরি নেতৃত্বকে হাজির করার আহ্বান জানাচ্ছি। যারা আপনাদের সঙ্গে ক্ষমতায় ছিল তাদেরকেও, যেমন সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি ও ওমর আবদুল্লাহ। হুরিয়াত নেতা মিরওয়াইজ ওমর ফারুক, আলি গিলানি, ইয়ামিন মালিকসহ অন্যরা। শ্রীনগর বা আপনাদের সুবিধামতো কোথাও গণভোট আয়োজন করুন। আপনারা জাতিসংঘকে দেয়া ওয়াদা পূরণ করেননি। আপনারা গণভোট আয়োজন করুন। তাহলেই সব পানির মতো পরিস্কার হয়ে যাবে।’

কাশ্মীরের উদ্ভূত পরিস্থিতিতে কূটনৈতিক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন কোরেশি। ইতিমধ্যে চীনকে দিয়ে জাতিসংঘের নিরাপত্তার পরিষদে রুদ্ধদ্বার একটি বৈঠক আয়োজন করতে সমর্থ হয়েছে পাকিস্তান। ভারতের পদক্ষেপের নিন্দা জানিয়েছে ইসলামিক সহযোগিতা সংস্থা (ওআইসি)। এটিকে নিজেদের কূটনৈতিক বিজয় দাবি করেছে পাকিস্তান।

কুরেশি বলেন, এ অঞ্চলকে বিতর্কিত হিসেবে চিহ্নিত করেছে জাতিসংঘ। বিশ্ব সংস্থাটির রেজ্যুলেশান অনুসারে উপত্যাকার সংকট নিরসন করতে হবে। দ্বিপাক্ষিখ সংলাপ প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, পাকিস্তান কখনো সংলাপের বিরোধিতা করেনি। বরং ভারত বারবার আলোচনার বিষয়ে এড়িয়ে গেছে বা নিরব থেকেছে। পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, কাশ্মীর সংকটে তিনটি পক্ষ জড়িত। ভারত, পাকিস্তান এবং কাশ্মীর। দুই পক্ষ জাতিসংঘ সিদ্ধান্তের সঙ্গে এখনও জড়িত হয়নি। আরেক পক্ষ কাশ্মীর খাচাবন্দি, তাদের ওপর কারফিউ আরোপ করা হয়েছে।

ভারত-পাক যুদ্ধের সময় ১৯৪৮ সালে ২২ এপ্রিল ‘জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের রেজ্যুলেশান ৪৭’-এ কাশ্মীর থেকে উভয় দেশের সৈন্য প্রত্যাহার ও গণভোটের কথা বলা হয়েছিল। ভারত গণভোট আয়োজনে অসম্মত হয়। তাদের ধারণা ছিল, মুসলিম অধ্যুষিত কাশ্মীরে গণভোট দিলে তারা পাকিস্তানের পক্ষেই যোগ দেবে। অন্যদিকে পাকিস্তানও কাশ্মীর থেকে সৈন্য প্রত্যাহার করেনি। ফলে উভয় দেশেই তথন থেকে কাশ্মীরে সৈন্য মোতায়েন করে রেখেছে। সেই সময় গণভোট না হলেও পরে একাধিকবার কাশ্মীরে গণভোটর কথা উঠেছে। জাতিসংঘের শর্তানুসারেই ভারতকে চাপে ফেলতে চাইছে পাকিস্তান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *