দৃষ্টিহীন ছাত্রীকে ৪ মাস লাগাতার ধর্ষণ দুই শিক্ষকের

ভারত

(গুজরাট, ভারত) এক দৃষ্টিহীন ছাত্রীকে চার মাস ধরে লাগাতার ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে দুই অন্ধ শিক্ষকের বিরুদ্ধে। ওই দুই শিক্ষকের নাম চমন ঠাকোর (৬২) ও জয়ন্তী ঠাকোর (৩০)। স্কুলের সংগীত শিক্ষা কক্ষে দুজনে মিলে ১৫ বছর বয়সী ছাত্রীকে ধর্ষণ করেন তারা। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়ার।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের গুজরাটের রাজকোটের আম্বাজিতে। নিযার্তিত ওই ছাত্রী গত দীপাবলির ছুটিতে স্কুল থেকে গুজরাটের পাটান জেলার রাধানপুর তালুকায় অবস্থিত তার বাড়িতে যায়। এরপর ছুটি শেষ হলেও সে আর স্কুলে ফেরত যেতে চাইছিল না। এতেই পরিবারের সন্দেহ হয়। এ সময় ধর্ষণের শিকার হওয়ার ঘটনা তার পিসিকে খুলে বলে। এরপর তার পরিবার অভিযুক্ত দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা করে।

নিজের এলাকায় অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ালেখা করার পর গান শেখার জন্য চলতি বছরের জুলাইতে বাড়ি থেকে দূরে আম্বাজির ওই স্কুলটিতে ভর্তি হয় ওই কিশোরী। স্কুলটিতে গান শেখানোর পাশাপাশি প্রতিবন্ধীদের কারিগরি শিক্ষা ও কর্মসংস্থানেরও ব্যবস্থা করা হয়। স্কুলের নিজস্ব হোস্টেলেই থাকতো দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী ওই শিক্ষার্থী।

৪ নভেম্বর দায়ের করা অভিযোগে বলা হয়েছে, ২ মাস আগে মিউজিক রুমে প্রথম মেয়েটিকে ধর্ষণ করে জয়ন্তী ঠাকোর। তিন দিন পর ওই একই ঘরে তাকে ফের ধর্ষণ করে চমন ঠাকোর। এরপর নবরাত্রির আগে ফের জয়ন্তী শিক্ষার্থীটিকে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। এভাবেই দিনের পর দিন তার ওপর অত্যাচার চলতে থাকে। এ নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে স্কুলটির অন্য তিন শিক্ষককেও বিষয়টি জানিয়েছিল সে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *