রোহিঙ্গা গণহত্যায় মিয়ানমারের বিরুদ্ধে গাম্বিয়ার মামলা, স্বাগত জানাল কানাডা

আফ্রিকা ইউরোপ পূর্ব এশিয়া

(অটোয়া, কানাডা) রোহিঙ্গাদের উপর গণহত্যা চালানোয় মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে গাম্বিয়ার মামলাকে স্বাগত জানিয়েছে কানাডা। মঙ্গলবার দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী ক্রিস্টিয়া ফ্রিল্যান্ড এক বিবৃতিতে গাম্বিয়ার প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, গাম্বিয়ার এই আবেদনকে আমাদের দেশ স্বাগত জানাচ্ছে। খবর এএফপির।

সোমবার (১১ নভেম্বর) মিয়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গা নিপীড়নকে গণহত্যা আখ্যা দিয়ে জাতিসংঘের সর্বোচ্চ আদালতের কাছে বিচার চায় আফ্রিকার দেশ গাম্বিয়া। নিধনযজ্ঞ পেরিয়ে যাওয়ার প্রায় আড়াই বছর পর প্রথমবারের মতো কোনো দেশ এমন পদক্ষেপ নিল।

কানাডীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এই পদক্ষেপের মাধ্যমে গণহত্যায় জড়িতদের শাস্তি নিশ্চিত হবে। এছাড়া ২০১৭ সালের আগস্টে সেখানে কাঠামোগত বৈষম্য, বিদ্বেষ ও লিঙ্গভিত্তিক সহিংসতাও বিচার হবে। তিনি আরও জানান, কানাডা এমন দেশগুলোর সঙ্গে কাজ করতে চায় যারা এই অপরাধীদের আন্তর্জাতিক আইনের মাধ্যমে বিচারের আওতায় আনতে চায়। সহযোগী দেশগুলোকে নিয়ে গাম্বিয়ার এই প্রচেষ্টায় সমর্থন দেওয়া হবে বলেও জানায় কানাডা।

২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট রাখাইনের কয়েকটি নিরাপত্তা চৌকিতে হামলার পর পূর্ব-পরিকল্পিত ও কাঠামোবদ্ধ সহিংসতা জোরালো করে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। হত্যা-ধর্ষণসহ বিভিন্ন ধারার সহিংসতা ও নিপীড়ন থেকে বাঁচতে বাংলাদেশে পালিয়ে আসে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর সাত লাখেরও বেশি মানুষ। ১৬ সেপ্টেম্বর প্রকাশিত জাতিসংঘের অনুসন্ধানী দলের সবশেষ প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল, রাখাইনে এখনও ছয় লাখ রোহিঙ্গা থেকে গেছে। তারা শোচনীয় পরিস্থিতিতে বসবাস করছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *