জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জকে ধর্ষণ মামলার তদন্ত থেকে অব্যাহতি দিল সুইডেন

ইউরোপ লিড নিউজ

(স্টকহোম, সুইডেন) বিকল্প সংবাদ মাধ্যম উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জকে ধর্ষণ মামলার তদন্ত থেকে অব্যাহতি দিয়েছে সুইডেন। কয়েক মাস ধরে অভিযোগের নথিপত্র পর্যালোচনার পরও শক্ত কোনো প্রমাণ না পাওয়ায় তদন্ত বন্ধ করেছে দিয়েছে দেশটির সরকার। মঙ্গলবার সরকারের এক শীর্ষ আইনজীবী এ তথ্য জানিয়েছেন। ডেপুটি চিফ প্রসিকিউটার ইভা মেরি পারসন বলেন, প্রথম দিকে অভিযোগকারীদের তথ্য-প্রমাণ বিশ্বাসযোগ্য মনে হয়েছিল। কিন্তু প্রায় এক দশক আগের এই ঘটনায় সাক্ষীরা ঠিকভাবে মনে করতে পারছেন না। খবর দ্য গার্ডিয়ানের।

২০১২ সাল থেকে বিগত সাত বছর লন্ডনের ইকুয়েডর দূতাবাসে রাজনৈতিক আশ্রয়ে ছিলেন অ্যাসাঞ্জ, যা এক প্রকার বন্দিই বলা চলে। চলতি বছরের মে মাসে ইকুয়েডর তার আশ্রয় বাতিল করলে লন্ডন পুলিশ গ্রেপ্তার করে ৪৮ বছর বয়সী এই অস্ট্রেলিয়ান বন্দিকে। তখন থেকে তিনি লন্ডনের বেলমার্শ হাইসিকিউরিটি কারাগারে বন্দি আছেন।

২০১০ সালের আগস্টে সুইডেনে নির্ধারিত একটি সম্মেলনে বক্তব্য রাখতে গিয়েই অ্যাসাঞ্জের সমস্যার শুরু। ওই সফরের সময়ে তার সঙ্গে দেখা করা দুই নারী তার বিরুদ্ধে পরে ধর্ষণ ও নিপীড়নের অভিযোগ আনেন। ওই অভিযোগ অস্বীকার করে আসছেন অ্যাসাঞ্জ।

এর পরিপ্রেক্ষিতে প্রথমে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাকে ছেড়ে দেয় সুইডিশ কর্তৃপক্ষ। তখনকার মতো সুইডেন ছাড়তে সক্ষম হন তিনি। কিন্তু পরে তাকে আবারও জিজ্ঞাসাবাদ করতে চায় কর্তৃপক্ষ। ২০১০ সালের ২০ নভেম্বর আন্তর্জাতিক পুলিশ সংস্থা ইন্টারপোল তাকে গ্রেপ্তার করতে রেড নোটিস জারি করে।

ওই বছরের ২৭ নভেম্বর লন্ডনের ওয়েস্টমিনিস্টারের এক বিচারকের আদালতে আত্মসমর্পণ করেন তিনি। পরে ডিসেম্বর মাসে তাকে দুই লাখ ৪০ হাজার ইউরো জমা ও নিশ্চয়তার শর্তে তাকে জামিন দেয় আদালত। ২০১২ সালের জুন পর্যন্ত আইনি লড়াইয়ের এক পর্যায়ে সুইডিশ আইনজীবীরা তাকে সুইডেনে ফিরিয়ে নেওয়ার আবেদন জানায়।

২০১২ সালের ১৯ জুন জামিনের শর্ত ভঙ্গ করে লন্ডনের ইকুয়েডর দূতাবাসে ঢুকে পড়ে রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন জানান। ব্রিটিশ পুলিশ দূতাবাস ভবন ঘিরে রেখে তার বাইরে বের হওয়ার যাবতীয় সুযোগ বন্ধ করে রাখে। জামিনের শর্ত ভঙ্গ করায় ব্রিটেনের আদালত তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে।

২০১০ সালে কয়েক লাখ মার্কিন গোপন নথি ফাঁস করে উইকিলিকস হইচই ফেলে দেয় বিশ্বজুড়ে। তখন থেকেই বিশ্বব্যাপী আলোচনায় উইকিলিকস প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ। ওই বছরেই যৌন হয়রানির অভিযোগে সুইডেনে অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে মামলা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *