সৌদিতে ফের মার্কিন সেনা মোতায়েন, হুঁশিয়ারি রাশিয়ার

আমেরিকা মধ্যপ্রাচ্য লিড নিউজ

(রিয়াদ, সৌদি আরব) সৌদি আরবে নতুন করে সেনা মোতায়েন করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এরইমধ্যে মার্কিন সেনাদের প্রথম দল দেশটিতে পৌঁছেছে এবং বাকি সেনা আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে পৌঁছাবে। মার্কিন সেনা মোতায়েনের বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছে রাশিয়া। মস্কো বলেছে, সৌদিতে মার্কিন সেনা মোতায়েনের কারণে এ অঞ্চলে উত্তেজনা আরও বেড়ে যাবে।

মঙ্গলবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কংগ্রেসকে সেনা মোতায়েনের কথা জানান। নতুন করে সেনা মোতায়েনের ফলে সৌদি আরবে মার্কিন সেনা সংখ্যা দাঁড়াবে তিন হাজারে। মার্কিন কংগ্রেসের সিনেট এবং প্রতিনিধি পরিষদের প্রধানের কাছে লেখা এক চিঠিতে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, সেনা মোতায়েনের পাশাপাশি সৌদি আরবের রাডার এবং ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা, একটি এয়ার এক্সপেডিশন উইং এবং দুই স্কোয়াড্রন যুদ্ধবিমান মোতায়েন করা হবে।

চিঠিতে পরিষ্কার করে বলা হয়েছে, যতদিন প্রয়োজন ততদিন এসব সেনাসদস্য মোতায়েন করা থাকবে। ট্রাম্প দাবি করেন, ওয়াশিংটনের এ পদক্ষেপের ফলে মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন স্বার্থ রক্ষিত হবে। এছাড়া ইরানকে মোকাবেলায় মধ্যপ্রাচ্যে মোতায়েন করা সেনাদের শক্তি বাড়বে। বুধবার রুশ উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী মিখাইল বোগদানভ সৌদিতে মার্কিন সেনা মোতায়েনের কারণে এ অঞ্চলে উত্তেজনা আরও বেড়ে যাবে।

উপসাগরীয় অঞ্চলে কৌশলগত দিক থেকে হরমুজ প্রণালি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই প্রণালি নিয়ে ইরানের সঙ্গে পশ্চিমা বিশ্বের উত্তেজনা এখন তুঙ্গে। এর মধ্যে মিত্র সৌদি আরবে সেনা মোতায়েন করছে যুক্তরাষ্ট্র। ২০০৩ সালের পর প্রথমবারের মতো মার্কিন সেনারা সৌদিতে ঘাঁটি গাড়তে চলেছে। অশান্ত উপসাগরীয় অঞ্চলে স্থিতিশীলতা নিশ্চিত করতে এই পদক্ষেপ বলে দাবি করেছে রিয়াদ ও ওয়াশিংটন। তবে বিশ্লেষকদের ধারণা, ইরানের সঙ্গে নতুন করে যুদ্ধে জড়ানোর পাঁয়তারা করছে যুক্তরাষ্ট্র।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *