ভারতের ত্রিপুরায় অনাহারে একই পরিবারের ৪ জনের আত্মহত্যা

ভারত লিড নিউজ

(ত্রিপুরা, ভারত) ভারতের ত্রিপুরায় একই পরিবারের ৪ জন আত্মহত্যা করেছেন। অনাহারের জ্বালা সইতে না পেরে শনিবার রাজ্যের পূর্ব চানপুর এডিসি ভিলেজের সন্ন্যাসীমুড়ার দিনমজুর পরেশ তাঁতি গত স্ত্রী ও দুই সন্তানকে নিয়ে আত্মহত্যা করেন। কাজ না থাকায় অনাহারে তারা আত্মহত্যার বেছে নেন বলে পরেশ তাঁতির শাশুড়ির বরাত দিয়ে অভিযোগে করেছে রাজ্যের বিরোধী দল।

আনন্দবাজার পত্রিকার খবর, এ ঘটনার পর ত্রিপুরায় কাজের অভাব ও চড়া সুদে বেসরকারি সংস্থার ঋণের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে সিপিএম। বিজেপি-আইপিএফটি জোটের সরকার অবশ্য অভাবের তাড়নায় মৃত্যুর কথা অস্বীকার করেছে। এই অবস্থায় সোমবার সন্ন্যাসীমুড়ার পরিস্থিতি সরেজমিন দেখতে যান রাজ্যের বিরোধী দলনেতা মানিক সরকার, সিপিএমের আরও দুই বিধায়ক সুদন দাস ও রতন ভৌমিক, স্বশাসিত জেলা পরিষদের কার্যনির্বাহী সদস্য পরীক্ষিত মুরা সিংহ।

স্থানীয়দের কাছে খোঁজ খবর নিয়ে সংবাদ মাধ্যমের কাছে মানিক সরকার অভিযোগ করেছেন, গোটা ত্রিপুরায় অরাজকতা চলছে। কাজ ও খাদ্যের অভাব চারদিকে। এলাকার লোকজন ও পরেশ তাঁতির শাশুড়ি অঞ্জনা তাঁতির সঙ্গে কথা বলে তারা জানতে পেরেছেন, কাজ না পাওয়ায় অনাহারের পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল পরিবারে। সে কারণেই চরম পথ বেছে নেয় পরেশের পরিবার। বেসরকারি সংস্থা থেকে ঋণও নিয়েছিলেন পরেশ। তা শোধ করতে না পারার যন্ত্রণাও তাকে হতাশার দিকে ঠেলে দিয়েছে।

মানিক সরকার বলেন, রাজ্যে কাজ না পেয়ে অনাহারে যাতে কারও মৃত্যু না হয় তার জন্য কর্মসংস্থানে নজর দিক রাজ্য সরকার। রাজ্যে চড়া সুদে ঋণ দিচ্ছে যে সব সংস্থা, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিক। এক পরিবারের চার জনে আত্মহত্যার কথা জানার পরে সিপিএম রবিবার অভিযোগ করেছিল বিজেপি-আইপিএফটি জোটের সরকার উৎসবের আয়োজন করছে সরকারি অর্থের অপচয় করে। এ দিকে সারা রাজ্যে চলছে কাজ ও খাদ্যের আকাল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *