বিশেষ সম্মাননা পেলেন জার্মানির নারী ইমাম সাইরান আতিস

ইউরোপ

(বার্লিন, জার্মানি) নিজ দেশে বিশেষ সম্মাননা পেলেন জার্মানির আলোচিত আইনজীবী, লেখক ও নারী ইমাম নারী ইমাম সাইরান আতিস। আতিস দেশটিতে মুসলিম নারীদের অধিকার ও মসজিদে মুখ আবৃত না করে প্রবেশাধিকারের জন্য লড়াই করছেন। তাকে দেয়া হল উরানিয়া মেডেল। গত ২৬ নভেম্বর সন্ধ্যায় এক আয়োজনের মধ্য দিয়ে তার হাতে পদকটি তুলে দেয় বার্লিনের বিখ্যাত সাংস্কৃতিক ও সামাজিক প্রতিষ্ঠান উরানিয়া। খবর ডয়েচে ভেলের।

প্রশিক্ষণ নিয়ে বার্লিনের ইবনে রুশদ-গ্যোটে মসজিদে ইমামের দায়িত্ব পালন করছেন তুর্কি বংশোদ্ভূত জার্মান নারী আতিস। ২০১৭ সালে তিনি নিজেই এই মসজিদ প্রতিষ্ঠা করেন। ইসলামি পদার্থবিদ ও দার্শনিক ইবনে রুশদ এবং জার্মান কবি ও দার্শনিক ইয়হাসের নামানুসারে মসজিদটির নামকরণ করা হয়।

১৯৬৩ সালে তুরস্কের ইস্তাম্বুলে জন্ম নেন আতিস। বাবা-মার সঙ্গে চার বছর বয়স থেকেই জার্মানিতে বসবাস করছেন তিনি। ইসলামে মুক্ত চিন্তার লড়াই, নারীদের সমান অধিকার, উদার মসজিদ প্রতিষ্ঠার জন্য এরই মধ্যে আলোচিত হয়ে উঠেছেন তিনি। নিজ সম্প্রদায়ের অনেকের সমর্থন যেমন পাচ্ছেন, তেমনি আবার পাচ্ছেন হুমকিও। যে কারণে তাকে সার্বক্ষণিক পুলিশি নিরাপত্তায় থাকতে হয়।

প্রচলিত মসজিদগুলোর মতো নয় সাইমন আতিসের প্রতিষ্ঠা করা মসজিদটি। সেখানে যে-কোনো মানুষেরই প্রবেশাধিকার রয়েছে। নারী-পুরুষ একসঙ্গেই প্রার্থনায় অংশ নিতে পারেন। ২০১৭ সালে জার্মানির স্পিগেল পত্রিকাকে দেয়া সাক্ষাৎকারে আতিস বলেছিলেন, ‘আমাদের মসজিদে কাউকে নিকাব বা বোরকা পরে আসতে হবে না।’

এরপর থেকে এ মসজিদে কোনো নারীকে মুখ ঢেকে প্রবেশ করতে হয় না, যা মসজিদটির সবচেয়ে বড় বৈশিষ্ট্য। আতিসের এই সামাজিক আন্দোলনের জন্য তাকে ওই সম্মাননা জানানো হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *