মধ্যপ্রাচ্যে ২১ মার্কিন ঘাঁটির দিকে তাক করা ইরানের মিসাইল: আইআরজিসি

মধ্যপ্রাচ্য লিড নিউজ

(তেহরান, ইরান) ইরানিয়ান বিপ্লবী গার্ড বাহিনী (আইআরজিসি) কলেজের ঊর্ধ্বতন উপদেষ্টা জেনারেল আল্লাহনূর নুরুল্লাহি বলেন, ইরান প্রতিদিন ২০ হাজার মিসাইল উৎক্ষেপণে সক্ষম। এছাড়া মধ্যপ্রাচ্য জুড়ে ২১টি মার্কিন ঘাঁটি লক্ষ্য করে ইরানি ক্ষেপণাস্ত্র তাক করা আছে।  শুক্রবার ইরানের অন্যতম প্যারামিলিটারি বাহিনী ‘বাসিজ’র ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে দক্ষিণের বন্দরনগরী বুশেহরয়ে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

তেহরানের সক্ষমতা নিয়ে তিনি বলেন, প্রতিদিন ২০ হাজার মিসাইল উৎক্ষেপণে সক্ষম ইরান। কিন্তু ইরানের সক্ষমতা আসলে আরও অনেক বেশি। যুদ্ধ বেধে গেলে এ দৈনিক চেয়েও বেশি ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়তে সক্ষম আমরা। সবচেয়ে বড় শত্রুর বিরুদ্ধে সবচেয়ে বড় যুদ্ধের জন্য ইরান প্রস্তুত। নুরুল্লাহি বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া ও চীনের পর ইরান ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থায় বিশ্বে চতুর্থ শক্তি। ইরানের বিরুদ্ধে কোনো ভুল করলে তেল আবিব ও হাইফাকে গুঁড়িয়ে দেয়া হবে।

চলতি বছরের জুনে পারস্য উপসাগরে নিজের সীমানার ভেতরে যুক্তরাষ্ট্রের আরকিউ-৪এ গ্লোবাল হক ড্রোন ভূপাতিত করে ইরান। এর মধ্য দিয়ে প্রথমবারের মতো আকাশ থেকে নামানো হয় পেন্টাগনের নজরদারি ড্রোন। ওই ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ইরানের সরাসরি যুদ্ধ বাধার আশঙ্কা যেমন তুঙ্গে ওঠে, তেমনি ইরানের সামরিক সক্ষমতা বাড়ার বিষয়টিও সামনে আসে।

ইরানের আকাশ প্রতিরক্ষাব্যবস্থা নিয়ে প্রতিরক্ষা সাময়িকী জেন’স ডিফেন্স উইকলির মধ্যপ্রাচ্য ও উত্তর আফ্রিকা সম্পাদক জেরেমি বিনি সিএনএনকে বলেন, ‘সেগুলো (প্রতিরক্ষাব্যবস্থা) ভাল কাজ করছে।’ তিনি আরও বলেন, ড্রোন নামানোর ঘটনার মধ্য দিয়ে প্রমাণিত হয়েছে ইরানিরা আসলেই বিনিয়োগ করছে, এটা গোনায় ধরতে হবে। বিনির মতে, ইরানের ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের মাধ্যমে তাদের সক্ষমতার বিষয়টি সামনে এসেছিল। ড্রোন ফেলে দেওয়ার মধ্য দিয়ে আকাশ প্রতিরক্ষায় এগোনোর বিষয়টিও সামনে আসে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *