সিরিয়ায় সরকারি বাহিনী ও রাশিয়ার অভিযানে পালিয়েছে দুই লক্ষাধিক মানুষ

মধ্যপ্রাচ্য

দামেস্ক-সিরিয়া- সিরিয়ার বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত উত্তরাঞ্চলীয় ইদলিব প্রদেশে সম্প্রতি বড় ধরনের সামরিক অভিযান চালিয়েছে দেশটির প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের বাহিনী ও প্রধান পৃষ্ঠপোষক রাশিয়া। আসাদবিরোধী বিদ্রোহীদের লক্ষ্য করে চালানো এ অভিযানে অঞ্চলটিতে নতুন করে মানবিক বিপর্যয় ঘটেছে। দুই পক্ষের লড়াইয়ের মুখে গত দুই সপ্তাহে ২ লাখ ৩৫ হাজারের অধিক বাসিন্দা এলাকাটি ছেড়ে পালিয়েছে। ২৭ ডিসেম্বর শুক্রবার জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক সংস্থা ওসিএইচএ-র এক প্রতিবেদনে উঠে এসেছে এমন তথ্য।খবর এএফপির ।

২০১১ সালে শুরু হওয়া গৃহযুদ্ধের পর রাশিয়ার সহায়তায় ইতোমধ্যেই সরকারবিরোধী বিদ্রোহীদের কাছ থেকে দেশের বেশিরভাগ অংশের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে আসাদ বাহিনী। ফলে দেশটিতে ইদলিব-কেই বিদ্রোহীদের সর্বশেষ উল্লেযোগ্য ঘাঁটি হিসেবে বিবেচনা করা হতো। তবে এখন বিমান হামলার মুখে লোকজন এলাকাটি ছাড়তে মরিয়া হয়ে পড়েছে। হামলায় বিদ্রোহীদের লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করার কথা বলা হলেও বেসামরিক নাগরিকরাই সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

ওসিএইচএ জানিয়েছে, নতুন করে সহিংসতা বৃদ্ধির ফলে বেসামরিক নাগরিকরা ভয়াবহ পরিস্থিতির মুখে পড়েছে। বিমান হামলার ফলে লোকজন পালিয়ে যাওয়ায় ইদলিবের দক্ষিণাঞ্চল ইতোমধ্যেই প্রায় খালি হয়ে গেছে। গত ১২ ডিসেম্বর থেকে রাশিয়া ও আসাদ বাহিনীর অভিযানে এমন পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।

সিরীয় গৃহযুদ্ধে জাতিসংঘের হিসাব অনুযায়ী, প্রায় ৪ লাখেরও বেশি মানুষের প্রাণহানি হয়েছে। বাস্তুচ্যুত হয়েছে লাখ লাখ মানুষ। দেশটির গৃহযুদ্ধে প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদের প্রধান পৃষ্ঠপোষক রাশিয়া ও ইরান। অন্যদিকে সিরিয়ায় আইএস বিরোধী লড়াইয়ের কথা বলে সেখানকার বিদ্রোহীদের সমর্থন দিয়েছে তুরস্ক ও যুক্তরাষ্ট্র।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *