ইরানে সোলাইমানির লাশ ঘিরে মানুষের ঢল, শোকের মাতম

মধ্যপ্রাচ্য লিড নিউজ

তেহরান, ইরান- ইরানের রাজধানী তেহরানের কাছেই আহবাজ শহরে কুদস ফোর্সের কমান্ডার কাসেম সোলাইমানির শোক মিছিলে অংশ নিয়েছেন বিপুল সংখ্যক মানুষ। রোববার ভোরে ইরানের দক্ষিণাঞ্চলীয় আহওয়াজ বিমানবন্দরে তার মরদেহ পৌঁছায়। এ সময় দেশটির শীর্ষস্থানীয় সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তারা সেখানে উপস্থিত ছিলেন। পরে সোলাইমানির শোক মিছিলে মানুষের ঢল নামে। পুরো শহরই যেন জনসমুদ্রে পরিণত হয়। বুক চাপড়াতে চাপড়াতে শোক প্রকাশ করেন অনেকেই। এই সময় শোক প্রকাশকারীদের মুখে থেকে থেকে স্লোগান উঠছিল-‘আমেরিকা নিপাত যাক’।

আহবাজ থেকে তার মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় ইরানের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় মাশহাদ নগরীতে। সেখানে তার প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে সমবেত হন লাখো মানুষ।এর আগে শনিবার ইরাকের কাজেমাইন, বাগদাদ, কারবালা ও নাজাফ শহরে কাসেম সোলাইমানি এবং তার সঙ্গে নিহত অন্যদের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। শিয়া সংখ্যাগরিষ্ঠ ইরাকের লাখো মানুষে এসব জানাজায় অংশ নেন।

বাগদাদে শোক মিছিলে অংশ নেওয়া জনতা ইরাক ও দেশটির ইরানপন্থী শিয়া মিলিশিয়া বাহিনীর পতাকা বহন করে। ‘আমেরিকা নিপাত যাক’ স্লোগানে বাগদাদের রাজপথ প্রকম্পিত করে তোলেন তারা। বিক্ষোভরত অনেকের হাতে ছিল সোলাইমানি ও ইরানের ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনির ছবি।

স্থানীয় টেলিভিশন চ্যানেলে প্রচারিত দৃশ্যে দেখা গেছে, শহরের মোল্লাভি স্কয়ারে লাখ লাখ লোক জাতীয় পতাকা ও সোলাইমানির ছবি নিয়ে হাজির হয়। এসময় অনেককে বুক চাপড়াতে দেখা যায়।

সোমবার তেহরান বিশ্ববিদ্যালয়ে সোলাইমানির জানাজা পড়াবেন আয়াতুল্লাহ খামেনি। পরে শিয়াদের পবিত্র শহর কোমে তার দাফন সম্পন্ন হবে।বার্তা সংস্থা ইসনা জানিয়েছে, রোববার পার্লামেন্টের অধিবেশনে এমপিরা ‘আমেরিকা নিপাত যাক’ স্লোগান দিয়েছেন। এসময় স্পিকার আলি লারিজানি বলেছেন, ‘ট্রাম্প, শোন-এটা ইরান জাতির কণ্ঠ’।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *