ইরানের জামখারান মসজিদে ওড়ানো হয়েছে ‘প্রতিশোধের প্রতীক’ লাল পতাকা

মধ্যপ্রাচ্য

তেহরান, ইরান- ইরানের পবিত্র শহর কোমের জামখারান মসজিদ থেকে লাল পতাকা উড়িয়ে দিয়েছে দেশটির জনগণ। ইতিহাসে এটিই মুসলিমদের নিকট পবিত্র এই গম্ভুজের ওপরে লাল পতাকা ওড়ানোর প্রথম ঘটনা। মার্কিন হামলায় ইরানের শীর্ষ সামরিক কমান্ডার মেজর জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে হত্যার প্রতিশোধ নিতে মরিয়া তেহরান। তার প্রতীক হিসেবেই ওড়ানো হয়েছে এই লাল পতাকা। এটি তাদের কাছে ‘প্রতিশোধের প্রতীক’। এর অর্থ, ইরানের জনগনকে যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত হতে বলা। এ খবর দিয়েছে বৃটেনভিত্তিক মেট্রো।

এদিকে দেশটির সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি তৈলচিত্র ভাইরাল হয়েছে যাতে দেখানো হয়েছে কারবালায় শহীদ হওয়া ইমাম হোসেইন (রাঃ) তার বুকে জড়িয়ে রেখেছেন মার্কিন হামলায় নিহত সোলাইমানিকে। সেখান থেকে গত দুদিন ধরে প্রচার হচ্ছে প্রতিশোধের আহবান।

রোববার ইরানে সোলাইমানির মরদেহ আসলে রাস্তায় শোক জানাতে নেমে আসেন লাখো মানুষ। তাদের মুখে শুধু একটিই কথা, প্রতিশোধ। এরইমধ্যে উড়িয়ে দেয়া হলো লাল পতাকা। মসজিদের ওপরে লাল পতাকা ওড়ানো হচ্ছে দেশের মানুষকে যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত থাকতে বলা। মেট্রো জানিয়েছে, এটি প্রমাণ করে প্রতিশোধের জন্য ইরান কতটা মরিয়া হয়ে উঠেছে। লাল পতাকা উত্তোলনের বিষয়টি ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়েছে।

ইসলাম ধর্মে বিশেষ করে ইরানি সংস্কৃতিতে লাল পতাকা হচ্ছে কোনো হত্যার প্রতিশোধ নেয়ার প্রতীক। ৬৮০ সালে ইমাম হোসেইন কারবালার যুদ্ধে শহীদ হন। তার মাজারেই প্রথম এই লাল পতাকা উত্তোলন করা হয়েছিল। এরপর থেকে এখনো সেই পতাকা নামানো হয়নি। এই পতাকা সেদিনই নামানো হবে যেদিন ইমাম হোসেইনের হত্যাকান্ডের প্রতিশোধ নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *