ট্রাম্পের মাথার জন্য ৮ কোটি ডলার পুরস্কার ঘোষণা

মধ্যপ্রাচ্য লিড নিউজ

তেহরান, ইরান- যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মাথার বিনিময়ে ৮ কোটি ডলারের পুরস্কার ঘোষণা করা হয়েছে। ইরানের শীর্ষ সামরিক কমান্ডার মেজর জেনারেল কাসেম সোলাইমানির হত্যার প্রতিশোধ হিসেবে রোববার ইরানের এক বক্তা এ পুরস্কার ঘোষণা করেন। এই ঘোষণাটি ইরানের টেলিভিশনে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়। তবে ওই বক্তার পরিচয় প্রকাশ করা হয়নি।

ট্রাম্পের মাথার এই মূল্য সম্পর্কিত বিষয় ইরান সরকার নিশ্চিত করেনি। এমন কি তারা এ বিষয়ে মন্তব্যও করে নি। এ খবর দিয়েছে অনলাইন ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস টাইমস, ডেইলি মিরর সহ আন্তর্জাতিক বিভিন্ন মিডিয়া। নিউজিল্যান্ড হেরাল্ডের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সোলাইমানিকে হত্যার ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্রকে কঠোর প্রতিশোধের হুমকি দিয়েছে ইরান। রোববার সোলাইমানির লাশ তেহরানে পৌছালে তার জানাজায় রাজধানীর আহভাজ শহরে জড়ো হয়েছিল লাখ লাখ জনতা। এ সময় বিক্ষুব্ধ এক বক্তা ট্রামের মাথার মূল্য ঘোষণা করেন।

রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন চ্যানেল ওয়ানে  অজ্ঞাত ওই বক্তা বলেন, ইরানে আমরা ৮ কোটি মানুষ। যদি তাদের প্রতিজন এক ডলার করে দেন, তাহলে আমাদের সংগ্রহে আসবে ৮ কোটি ডলার। কেউ যদি ট্রাম্পের মাথা আমাদের কাছে এনে দিতে পারে তাকে আমরা ওই অর্থ পুরস্কার হিসেবে দিতে পারি।

চ্যানেল ওয়ানে সরাসরি সম্প্রচার করা হয় এ বক্তব্য। এতে তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের মহান বিপ্লবের এই নেতাকে হত্যায় যে নির্দেশ দিয়েছে যেকেউ যদি তার মাথা এনে দিতে পারে তাহলে তাকে আমরা এই উপহার তুলে দেব। যদি কেউ এই হলুদাভ চুলের উন্মাদের মাথা এনে দিতে পারবে তাকে আমরা মহান ইরানের পক্ষ থেকে এই অর্থ উপহার দেব। আপনারা যদি সম্মত থাকেন তাহলে স্লোগান দিন।’ তার এ বক্তব্য শেষ হতেই উচ্চ শব্দে স্লোগান ওঠে।

ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস টাইমস লিখেছে, রোববার ইরানের রেভ্যুলুশনারি গার্ড কোরের পক্ষে এই ঘোষণা দেয়া হয়। এতে বলা হয়, সোমবার তেহরান বিশ্ববিদ্যালয়ে নিহত সোলাইমানির প্রতি সম্মান প্রদর্শন করা হবে।

শুক্রবার ইরাকের রাজধানী বাগদাদের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে যুক্তরাষ্ট্রের এক ড্রোন হামলায়  কাসেম সোলাইমানিকে হত্যা করা হয়। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের নির্দেশেই সোলাইমানিকে হত্যা করা হয়েছে। এই হত্যাকাণ্ডের পর ইরান ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে নতুন করে উত্তেজনা শুরু হয়েছে।

উত্তেজনার মধ্যেই ২০১৫ সালের পারমাণবিক চুক্তির সীমা আর মেনে চলবে না বলে ঘোষণা দিয়েছে তেহরান। রোববার এক বিবৃতিতে দেশটি বলেছে, তারা আর ২০১৫ সালের পারমাণবিক চুক্তির সীমা মেনে চলবে না। পরমাণু উপকরণ সমৃদ্ধকরণ, মজুদ, গবেষণা ও উন্নয়নের কাজে আর কোনো সীমাবদ্ধতা তারা রাখবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *