রাজপরিবার ছাড়ার পেছনের সত্যটা জানালেন হ্যারি

ইউরোপ

লন্ডন, বিটেন- ব্রিটিশ রাজপরিবার ছাড়ার পেছনের সত্যটা জানালেন প্রিন্স হ্যারি। তিনি বলেছেন, দায়িত্ব থেকে সরে আসা ছাড়া তাদের আর কোনো উপায় ছিল না।  প্রিন্স হ্যারি জানান, তিনি ও তার স্ত্রী মেগান মার্কল সরকারি তহবিল ছাড়াই রানির হয়ে দায়িত্ব পালন করা চালিয়ে যাবেন বলে আশা করেছিলেন, কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত তা সম্ভব হয়নি। আর এ কারণেই প্রাসাদ ছেড়েছেন তারা। রোববার সন্ধ্যায় লন্ডনে সেন্টেবালে চ্যারিটির এক অনুষ্ঠানে দেওয়া বক্তব্যে তিনি রাজ পরিবারের দায়িত্ব ছেড়ে আসার বিষয়ে কথা বলেন। খবর বিবিসির।

দুই সপ্তাহ আগে একটি ইনস্টাগ্রাম পোস্টে তারা এ ঘোষণা দেয়ার পর রানি এলিজাবেথ সেটি সিদ্ধান্ত অনুমোদনও দিয়েছেন। এখন থেকে রাজউপাধিও ব্যবহার করবেন না তারা। ঘোষণা দেয়ার পর এ নিয়ে প্রথমবারের মতো জনসম্মুখে মুখ খুললেন হ্যারি।

অনুষ্ঠানে হ্যারি বলেন, আমি চাই আপনারা আমার কাছ থেকে সত্যিটা জানুন। যতটুকু আমি বলতে পারি- রাজপুত্র হিসেবে নয়, ডিউক হিসেবে নয়, শুধু হ্যারি হিসেবেই, আমি আপনাদেরই একজন, গত ৩৫ বছর ধরে আপনাদের সামনেই বেড়ে উঠেছি। ব্রিটেন আমার বাড়ি এবং ভালোবাসার জায়গা। বেড়ে উঠায় এ সময়টাতে আমি আপনাদের সহযোগিতা অনুভব করেছি। আপনারা খোলামনে মেগানকে স্বাগত জানিয়েছেন, আমি আমার সারাজীবনের কাঙিক্ষত ভালোবাসা খুঁজে পেয়েছি।’

হ্যারি বলেছেন, যুক্তরাজ্য আমার বাড়ি, আমার ভালোবাসার জায়গা, এটি কখনো পাল্টাবে না। বক্তব্যে হ্যারি আরও বলেন, সবসময় আমার দাদীর প্রতি আমার পূর্ণ শ্রদ্ধা বজায় থাকবে, (উনি) আমার কমান্ডার ইন চিফ। আমাদের আশা ছিল সরকারি তহবিল ছাড়াই রানির, কমনওয়েলথ ও আমার সামরিক সঙ্ঘগুলোর সেবা চালিয়ে যাওয়া। দুর্ভাগ্যবশত তা সম্ভব হয়নি। ‍

তিনি আরও বলেন, আমি এটি মেনে নিয়েছি, এটি জেনেই মেনে নিয়েছি যে এতে আমি কে তা বা আমার প্রতিশ্রুতিবদ্ধতার কোনো পরিবর্তন হবে না। চলতি মাসের প্রথমদিকে প্রিন্স হ্যারি ও মেগান এক ঘোষণায় বলেন, আমরা রাজ পরিবারের ‘জ্যেষ্ঠ’ সদস্যের দায়িত্ব থেকে সরে আসতে চাইছি। আমরা চাইছি আর্থিকভাবে স্বনির্ভর হওয়ার জন্য কাজ করতে। পাশাপাশি মহামান্য রানির প্রতি আমাদের পূর্ণ সহযোগিতা থাকবে।

শনিবার ব্রিটেনের রানি ও রাজ পরিবারের জ্যেষ্ঠ সদস্যদের সঙ্গে চূড়ান্ত সমঝোতার অংশ হিসেবে ‘তারা আর কখনো আনুষ্ঠানিকভাবে রানির প্রতিনিধিত্ব করবেন না’ এটি মেনে নিয়েছেন হ্যারি ও মেগান। আসছে বসন্ত থেকে তার আর হিজ/হার রয়্যাল হাইনেস (এইচআরএইচ) উপাধি ব্যবহার করবেন না এবং সরকারি সামরিক নিয়োগসহ রাজকীয় দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়াবেন বলে স্থির হয়েছে।

তবে হ্যারি ও মেগান তাদের ব্যক্তিগত পৃষ্ঠপোষকতা ও সঙ্ঘ-সমিতির সঙ্গে সম্পকর্ বজায় রাখতে পারবেন বলে বাকিংহাম প্রাসাদ থেকে দেওয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে।অনুষ্ঠানে রাজপরিবার ছেড়ে এখন শান্তিতে বসবাস করতে পারবেন বলে আশা প্রকাশ করেছেন হ্যারি। তিনি দাতব্য প্রতিষ্ঠান ও সামরিক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সহযোগিতা অব্যাহত রাখারও অঙ্গীকার করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *