ইতালিতে প্রতি ২ মিনিটে ১ জন মারা যাচ্ছে

ইউরোপ লিড নিউজ

রোম, ইতালি- করোনা এই মুহূর্তে সবচেয়ে ভয়াবহ রুপ নিয়েছে ইতালিতে। সোমবার পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে প্রায় ৬০ হাজার। মৃত্যু হয়েছে ৫ হাজার ৪৭৬ জনের। এর মধ্যে সর্বশেষ ৪৮ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ১৪৪৪ জনের। সেই হিসেবে প্রতি দুই মিনিটে মৃত্যু হয়েছে এক জনের। করোনায় প্রতি দুই মিনিটে একজন মারা যাচ্ছে।

প্রতিদিনই ভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকায় হাসপাতালগুলোতে উপচে পড়ছে রোগী। জায়গার সংকুলান হচ্ছে না, চিকিৎসা দিতে হিমশিম খাচ্ছে চিকিৎসকরা। এ পরিস্থিতিতে আইসিইউ ও কৃত্রিম উপায়ে শ্বাস-প্রশ্বাস যন্ত্র সরবরাহের ক্ষেত্রে বৃদ্ধদের চেয়ে অপেক্ষাকৃত অল্পবয়সীদের অগ্রাধিকার দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। সরকার বলছে, এসব যন্ত্র কম থাকায় সব রোগীকে এটি সরবরাহ করা মুশকিল হয়ে পড়ছে। এ কারণে যাদের বয়স ৬০-এর বেশি তাদেরকে এই যন্ত্র সরবরাহ না করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

ইতালিতে কোনোভাবেই যেন থামানো যাচ্ছে না করোনার থাবা। বেড়েই চলেছে মৃতের সংখ্যা। বাড়ছে আক্রান্তের হারও। দেশটিতে গত রোববার একদিনেই করোনায় মৃত্যু হয়েছে আরও ৬৫১ জনের। ইউরোপে এখন করোনার কেন্দ্রস্থল ইতালির উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশ মিলান।

এই প্রদেশের লম্বার্ডি শহরেই সবচেয়ে বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। বেরগামোতে শোকের মাতম আর চাপা কান্না। স্থানীয় কবরস্থানগুলোতে নেই জায়গা। ইতালির সেনাবাহিনীর কনভয়গুলো সারিবদ্ধভাবে এসে সেই কফিনগুলো নিয়ে যাচ্ছে দূরে কোথাও, অন্য কোনো কবরস্থানে, অন্য কোনো শহরে। লাশের সারি আর কত দীর্ঘ হবে- কেউ তা বলতে পারে না।

করোনা ইতালিকে এক মৃত্যুপুরীতে পরিণত করেছে। যেখানে সেখানে মানুষ মরে পড়ে থাকছে। তারই একটি বাস্তব চিত্র ধরা পড়েছে রাজধানী রোমের রাস্তায়। সেখানে হঠাৎই মুখ থুবড়ে হয়ে পড়ে যায় মুখে মাস্ক পরা এক ব্যক্তি। আশপাশে ধরার মতো কেউ নেই। বেঁচে আছে নাকি মরে গেছে কারো ভ্রক্ষেপ নেই। অবশেষে তাকে উদ্ধার করে মেডিকেল বিভাগের স্টাফরা। স্ট্রেচারে তুলে একটি এম্বুলেন্সে করে নেয়া হয় হাসপাতালে। ইতালির এই দৃশ্য কয়েক দিন আগের চীনের পরিস্থিতির কথা স্মরণ করিয়ে দিচ্ছে।

বিশেষজ্ঞরা হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, ব্রিটেনে একই রকম দৃশ্য হতে পারে দু’সপ্তাহের মধ্যে। এখন দেশটিতে মোট মৃতের সংখ্যা ২৩৩। ১৫ দিন আগেই এটাই ছিল ইতালির মৃতের সংখ্যা। দেশটিতে মৃত্যুর মিছিল দীর্ঘ থেকে দীর্ঘ হওয়ায় সহায়তার হাত বাড়িয়েছে রাশিয়া।

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ইতালির প্রধানমন্ত্রী গুইসেপ কন্টেকে জানিয়েছেন, রাশিয়ার সেনাবাহিনীর ভাইরাস বিষয়ক ১০০ বিশেষজ্ঞ ও মেডিকেল স্টাফ শিগগিরই ইতালি যাবে। সেনাবাবাহিনীর ৯টি বিমানের প্রথম স্কোয়াড্রন ইতোমধ্যে রোমে পৌছেছে। একইভাবে সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছে কমিউনিস্ট কিউবাও। ৫২ ব্রিগেড সেনা চিকিৎসক ও নার্স পাঠিয়েছে দেশটি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *