করোনায় ২০৬ দেশে মৃত্যু ৬৬ হাজার ছাড়িয়েছে

বিশ্বজগৎ লিড নিউজ

এশিয়ান র্জানাল ডেস্ক-  উৎপত্তিস্থল চীনে তেমন বিস্তার ঘটাতে না পারলেও পৃথিবীর অনেক দেশের জন্য ক্রমশই যেন জমদূতে পরিণত হচ্ছে নোভেল করোনাভাইরাস। বিশ্বের ২০৬টি দেশ ও অঞ্চলে করোনার প্রকোপ ছড়িয়ে পড়েছে।  কোভিড-১৯ এর ভয়াল থাবায় মৃত্যুর সংখ্যা ইতালি, স্পেন, যুক্তরাষ্ট্র, ফ্রান্স এর পর সর্বশেষ যুক্তরাজ্য ও ইরানও ছাড়িয়েছে চীনকে।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত বিশ্বব্যাপী ৬৬ হাজার ১৬৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। বিভিন্ন দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ১২ লাখ ৩ হাজার ৯৫১ অপরদিকে, হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২ লাখ ৪৭ হাজার ৮৮১ জন।

চীনে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হলেও সবচেয়ে বেশি প্রাণহানি হয়েছে ইতালিতে। এখন পর্যন্ত সেখানে করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ১৫ হাজার ৩৬২ জন। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ২৪ হাজার ৬৩২ জন। এই ভয়াবহ প্রাণহানি ইতালিসহ গোট ইউরোপকেই স্তব্ধ করে দিয়েছে। বহির্বিশ্বের সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধসহ পুরো দেশটি লকডাউন করা হয়েছে বেশ আগেই।

ইতালির পর করোনায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ ও প্রাণহানি হয়েছে ইউরোপের আরেক দেশ স্পেনে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ১১ হাজার ৯৪৭ জন মানুষের। মোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১ লাখ ২৬ হাজার ১৬৮ জন। স্পেনে করোনা আক্রান্ত্র রোগীদের মধ্যে ৬ হাজার ৫৩২ জনের অবস্থা আশংকাজনক।

করোনা আক্রান্তের ভয়াবহতা ছড়িয়ে পড়েছে মার্কিন মুল্লুকেও। এখন পর্যন্ত কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে ৮ হাজার ৪৫৪ জন মারা গেছে যুক্তরাষ্ট্রে। আর মার্কিন মুল্লুকেই সবচেয়ে বেশি করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এখন পর্যন্ত দেশটিতে মোট কোভিড-১৯ আক্রান্ত ৩ লাখ ১১ হাজার ৬৩৭ জন। ভাইরাস আক্রান্তদের মধ্যে ৮ হাজার ২০৬ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

করোনায় আক্রান্তদের মৃত্যু কোনোভাবেই কমছে না ইউরোপের আরেক দেশ ফ্রান্সে। মৃত্যু ও ভয়বহতা মার্কিনিদের পরেই রয়েছে দেশটি। ফ্রান্সে করোনায় মারা গেছেন ৭ হাজার ৫৬০ জন। দেশটির মোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৮৯ হজার ৯৫৩ জন। সুস্থ হয়েছেন ১৫ হাজার ৪৩৮ জন। বর্তমানে চিকিৎসা নিচ্ছেন ৬৬ হাজার ৯৫৫ জন। এদের মধ্যে ৬ হাজার ৮৩৮ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। বহির্বিশ্বের সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধসহ পুরো দেশটি লক ডাউন করা হয়েছে।

করোনাভাইরাসের উৎপত্তিস্থল খোদ চীনকে ছাড়িয়ে গেছে যুক্তরাজ্য। এখন পর্যন্ত দেশটিতে করোনায় মারা গেছেন ৪ হাজার ৩১৩ জন। আর ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৪১ হাজার ৯০৩ জন। এর মধ্যে শুধু শেষ চব্বিশ ঘণ্টায় মারা গেছে ৬৮৪ জন।

ইরানে করোনায় মৃত্যুও চীনের চেয়ে বেশি। এখন পর্যন্ত ইরানে করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ৩ হাজার ৪৫২ জন। দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ৫৫ হাজার ৭৪৩ জন। সুস্থ হয়েছেন ১৯ হাজার ৭৩৬ জন।

করোনায় ভয়াবহতা আপাতত ঠেকিয়ে দিয়েছে ভাইরাসটির উৎপত্তিস্থল চীন। এখন পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৮১ হাজার ৬৬৯ জন। আর করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৩ হাজার ৩২৯ জনের। সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরে গেছেন ৭৬ হাজার ৯৬৪ জন। বর্তমানে চিকিৎসা নিচ্ছেন ১ হাজার ৩৭৬ জন। এদের মধ্যে আশঙ্কাজনক ২৯৫ জন।

গত তিনমাসের নোভেল কোরোনা (কোভিড-১৯) নামক এই ভাইরাসে সারা পৃথিবীতে মৃত্যু হয়েছে ৬৪ হাজার ৭৭২ জনের। আর এই সময়ের মধ্যে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ১২ লাখ ৩ হাজার ১৮৮ জন। আর এদের মধ্যে সুস্থ হয়েছে ২ লাখ ৪৬ হাজার ৭৬০ জন। সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী জীবন-মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করছেন ৪৪ হাজার ৯৬ জন। আর করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন ৮ লাখ ৯১ হাজার ৬৮১ জন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *