করোনা লকডাউনের মধ্যে লেবাননে খাদ্য সংকট, ব্যাংকে হামলা লুটপাট

মধ্যপ্রাচ্য লিড নিউজ

লেবাননে করোনা লকডাউনের কারণে কঠিন সংকটের মধ্যে অর্থনীতি। তীব্র হয়ে উঠেছে মুদ্রাস্ফীতি, বেকারত্ম ও খাদ্য সংকট। খাদ্যের দাবিতে রাজপথে বিক্ষোভ করেছে হাজার হাজার ক্ষুধার্ত মানুষ। ব্যাংকে হামলা ও দোকানপাট লুটপাটের মতো ঘটনাও ঘটছে। নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষ হচ্ছে।

আলজাজিরা জানিয়েছে, লেবাননের উত্তরাঞ্চলের ত্রিপোলিতে সেনাবাহিনীর সঙ্গে সহিংস সংঘর্ষে একজন নিহত ও আরও কয়েক ডজন আহত হয়েছেন। বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে সেনাবাহিনীর সদস্যরা গোলাবারুদ, রাবার বুলেট ও টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করেছে।

আরও পড়তে পারেন- ইরানে করোনার ওষুধ ভেবে অ্যালকোহল পান, সাত শতাধিক মানুষের মৃত্যু

সোমবার দেশজুড়ে হাজার হাজার মানুষ সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায় এবং ত্রিপোলির একটি ব্যাংকে হামলা চালায়। দেশটিতে দ্রুতগতির মুদ্রাস্ফীতির কারণে ক্ষোভ থেকে ব্যাংকে হামলা হয়েছে বলে বিক্ষোভকারীদের অনেকে অভিযোগ করেছেন। তারা বলেছেন, মুদ্রার অবমূল্যায়ন ঘটায় লাখ লাখ মানুষ বেতন এবং ব্যাংকে জমাকৃত অর্থের অর্ধেক হারিয়েছেন।

সেনাবাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে ফাতিমা ফুয়াদ নামের এক তরুণীর ভাই ফুয়াজ ফুয়াদ আল সিমান মারা গেছেন বলে ওই তরুণী ফেসবুকে দেয়া এক পোস্টে নিশ্চিত করেছেন। সেনাবাহিনী বলছে, বিক্ষোভ থামাতে সেনাবাহিনী গোলাবর্ষণ এবং আকাশে ফাঁকা গুলি নিক্ষেপ করেছে।

আরও পড়ুন-কিশোর অপরাধে আর শিরশ্ছেদ করবে না সৌদি

লেবানন স্মরণকালের সবচেয়ে ভয়াবহ অর্থনৈতিক সঙ্কটের মুখে পড়েছে চলতি বছরে। সম্প্রতি করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে দেশজুড়ে লকডাউন জারি করায় অর্থনৈতিক দুর্দশা এই দেশটিতে ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে।

খাবারের তীব্র সংকট ও মৌলিক নিত্যপ্রয়োজনীয় চাহিদা পূরণে ব্যর্থ হয়ে জীবন বাঁচানোর তাগিদে দেশটির হাজার হাজার মানুষ রোববার থেকে বিক্ষোভ করে আসছেন। সোমবার ত্রিপোলিতে বিক্ষোভকারীরা জ্বালাও-পোড়াও ও সহিংস হয়ে উঠলে সেনাবাহিনীর সদস্যরা টিয়ারগ্যাস ও গোলাবর্ষণ করে।

আরও পড়ুন- ট্রাম্পকে পাল্টা হুমকি, মার্কিন রণতরী ধ্বংসের ঘোষণা ইরানের

ত্রিপোলির অসংখ্য স্থানে এই বিক্ষোভ হয়েছে। লেবাননের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর নর্দার্ন ত্রিপোলিতে সবচেয়ে বড় বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়। এই সময় বিক্ষোভকারীরা সড়কে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভের এক পর্যায়ে স্থানীয় একটি ব্যাংকে হামলা চালিয়ে লুটপাট করে।

লেবানন সেনাবাহিনী বলছে, বিক্ষোভ দমন এবং সড়ক থেকে উত্তেজিত জনতাকে সরিয়ে দেয়ার সময় অন্তত ৫৪ সেনাসদস্য আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ৪০ জনই ত্রিপোলিতে আহত হয়েছেন। মধ্যপ্রাচ্যের এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৭১৭ জন করোনা রোগী পাওয়া গেছে। এছাড়া এই ভাইরাসে মারা গেছেন ২৪ এবং সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৪৫ জন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *