ইসরাইলকে হুঁশিয়ারি জাতিসংঘ-আরব লীগের

ইসরাইলকে হুঁশিয়ারি জাতিসংঘ-আরব লীগের

মধ্যপ্রাচ্য লিড নিউজ

পশ্চিম তীর ও জর্ডানে উপত্যকা দখল পরিকল্পনা নিয়ে ইসরাইলকে হুঁশিয়ারি দিয়েছে জাতিসংঘ ও আরব লীগ। বুধবার জাতিসংঞ নিরাপত্তা পরিষদের অনলাইন বৈঠকে এই হুশিয়ারি দেন বিশ্বনেতারা। বলেন, ইসরাইলের এই এক তরফা দখল পরিকল্পনা এই অঞ্চলের শান্তির সম্ভাবনা হুমকির মুখে ফেলতে পারে।

পশ্চিম তীরে ইসরাইলি দখল পরিকল্পনাকে প্রত্যাখ্যান করেছেন ইউরোপের বিভিন্ন রাষ্ট্রের এক হাজারের বেশি সাংসদ। বুধবার এ সম্পর্কিত একটি চিঠিতে তারা সবাই স্বাক্ষর করেছেন বলে জানা গেছে।

গোটা বিশ্ব এখন করোনাভাইরাস নিয়ে ব্যস্ত। এই সুযোগ কাজে লাগাতে চেষ্টা করছে ইহুদিবাদী রাষ্ট্র ইসরাইল। তারা অবরুদ্ধ পশ্চিম তীর ও জর্ডান উপত্যাকায় তাদের দখলদারিত্ব বাড়ানোর পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে যাচ্ছে আগামী সপ্তাহে।

বুধবার (২৪ জুন) জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস নিরাপত্তা পরিষদের ভার্চুয়াল সভায় ইসরাইলকে এই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন না করার আহব্বান জানিয়েছেন। আর তারা যদি সেটা করে তাহলে আন্তর্জাতিক আইন লঙ্খিত হবে। এতে পরিস্থিতি আরও খারাপ হবে। ফিলিস্তিনসহ আরব বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সঙ্গে যে সমঝোতার বিষয়ে এগিয়ে যাচ্ছিলো সেটি হুমকির মুখে পড়বে। গুতেরেসের এমন প্রস্তাবকে সমর্থন জানিয়েছেন বিশ্বনেতারা ও বিভিন্ন দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীগণ।

গুতেরেস বলেছেন, ‘আমরা একটি চরমমুহূর্ত পার করছি। এমন সময়ে ইসরায়েল যদি পশ্চিম তীরে তাদের দখলদারিত্ব বৃদ্ধি করে, বসতি স্থাপন করে তাহলে সেটা হবে আন্তর্জাতিক আইনের চরম লঙ্ঘন। যেটা মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করবে ‘টু স্টেট’সমাধানের সম্ভাবনাকে। দুটি দেশের মধ্যে সমঝোতার যে সম্ভাবনা সেটার গোড়া কেটে দিবে। তাই আমি ইসরাইলের সরকারকে বলবো তাদের দখলদারিত্ব ও অন্তর্ভূক্তির পরিকল্পনা বাদ দিতে।’

পশ্চিম তীর ও জর্ডানে উপত্যকা দখলের ব্যাপারে ইসরাইলকে হুঁশিয়ারি আরব লীগের প্রধান আহমেদ আবুল গাইত বলেন, ইসরাইলকে তার এ পরিকল্পনা থেকে সরে আসতেই হবে। তিনি আরও বলেন, ‘তিন দশক ধরে প্রকৃত শান্তি ও স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের গঠন একটা মায়ায় পরিণত হয়েছে। ফিলিস্তিনিদের মধ্যে এখন শুধু হতাশা আর দুঃস্বপ্ন।’

আরব নিউজ জানায়, এই চিঠিতে ২৪০ জন ব্রিটিশ সাংসদ সই করেছেন। তারা এই পরিকল্পনাকে ঘিরে গভীর উদ্বেগের কথা প্রকাশ করেছেন। তারা বলছেন, জোর করে কোনো কিছু দখল করার পরিণতি কখনই ফলাদায়ক প্রমাণিত হয়নি।

আগামী ১ জুলাই পশ্চিম তীর ও জর্ডান ভ্যালির ফিলিস্তিনি অধ্যুষিত অঞ্চল নিজেদের আয়ত্তে নিয়ে নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষ। যদি তারা সফল হয় তাহলে ওই অঞ্চলের ৩০ শতাংশ ভূমি দখল করে নেবে তারা। যা আন্তর্জাতিকভাবে অবৈধ হিসেবে পরিগণিত হবে।

গত মাসে ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু পশ্চিম তীরে নিজেদের নিয়ন্ত্রণ আরও বাড়াতে বেশ কিছু পরিকল্পনা করেন৷  আগামী কয়েক মাসে ওই পরিকল্পনার দ্রুত বাস্তবায়নে নেতানিয়াহু তার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ বেনি গান্তাজের সঙ্গে যৌথ সরকার গঠনের বিষয়ে একটি চুক্তি স্বাক্ষরও করেছেন৷

অথচ আন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী পশ্চিম তীর ও পশ্চিম জেরুজালেম অধিকৃত এলাকা। সেখানে পরিকল্পিত দখলদারিত্ব ও অন্তর্ভূক্তি অবৈধ। সেটা অমান্য করে সম্প্রতি ইসরায়েল সরকার পরিকল্পনা করেছে তাদের বসতি স্থাপন বৃদ্ধির। এখন দেখার বিষয় জাতিসংঘের এই অনুরোধ রাখে কিনা ১৯৬৭ সাল থেকে দখলদারিত্ব বৃদ্ধি করে চলা ইসরাইল।

আরও পড়ুন:

রিয়াদে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা হুতি বিদ্রোহীদের

সীমিত আকারে হজ আয়োজন করবে সৌদি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *