লাদাখের সিন্ধু নদে মোদির পূজা

ভারত লিড নিউজ

শান্তি চেয়ে লাদাখের সিন্ধু নদে দিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। গালওয়ান উপত্যকায় চীনা সেনাদের সঙ্গে এক কর্নেল-সহ ২০ ভারতীয় সেনা সদস্য নিহত হন। এরপর দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনার মধ্যে শুক্রবার (৩ জুলাই) লাদাখ সফর করেন মোদি। সেখানে নিয়োজিত সেনাদের উদ্দেশে বক্তৃতা করার পর জাতির শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনায় সিন্ধু নদে পূজাও দিয়েছেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী।খবর এনডিটিভির।

শনিবার (৪ জুলাই) নরেন্দ্র মোদি তার ফেসবুক পেজে পূজা পালনের ছবি পোস্ট করে জানান, ‘গতকাল নিমুতে সিন্ধু পূজা করেছি। জাতির শান্তি, উন্নতি ও সমৃদ্ধি প্রার্থনা করেছি। প্রধানমন্ত্রী মোদির লাদাখ সফরের দিনেই ভারতকে নতুন করে সকর্ত বার্তা দিয়েছে বেইজিং। 

ভারতীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, লাদাখের গালওয়ানে চীনের সেনাদের সঙ্গে সংঘর্ষে ২০ জন ভারতীয় সেনা নিহত হওয়ার কয়েক দিন পরেই মোদির একদিনের এ সফর। সফরের ফাঁকে নিমু এলাকায় সিন্ধু দর্শনে গিয়ে পূজা দেন মোদি।

সিন্ধু নদের পাড়ের ঐতিহাসিক সভ্যতার অসাম্প্রদায়িক চেতনাকে ধারণ করে সিন্ধু দর্শন উৎসব হয়ে থাকে। তিন দিনের উৎসবে সিন্ধু নদকে ঐক্য, শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান এবং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির প্রতীক হিসাবে স্বীকৃতি দেয়া হয়।

পূজা দেয়ার আগে সেনাদের উদ্দেশে বক্তৃতায় মোদি চীনের নাম উল্লেখ না করে বলেন, বিস্তারবাদের যুগ শেষ, এটি উন্নয়নের যুগ। ইতিহাস সাক্ষী রয়েছে যে বিস্তারবাদী শক্তিগুলি হয় হেরে গেছে নয়তো ফিরে যেতে বাধ্য হয়েছে। ভারতীয় সেনাদের ‘বীর ভূমিপুত্র’ হিসাবে বর্ণনা করে মোদি আরো বলেন, ‘দুর্বলরা কখনই শান্তি পেতে পারে না, সাহসীরাই পারে।’

লাদাখে ভারতের যে রাস্তা নির্মাণকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ততা সে বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী মোদি বলেন, ভারত সীমান্তবর্তী অঞ্চলে রাস্তা ও সেতু নির্মাণ বন্ধ করবে না। মোদির এই সফরের কয়েক ঘণ্টা পরই চীন হুশিয়ারি দিয়ে বলেছে, সীমান্তে উত্তেজনা চলাকালে দু’পক্ষেরই এমন কোনও ‘অ্যাকশন’ যাওয়া উচিত নয় যাতে পরিস্থিতি খারাপের দিকে যায়।

চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান বলেন, ‘ভারত ও চীনের মধ্যে যোগাযোগ রয়েছে। উত্তেজনা কমানোর উদ্দেশে সামরিক ও কূটনৈতিক স্তরে আলোচনা চলছে। পরিস্থিতি ফের নতুন গতি পেতে পারে এমন কোনও ‘অ্যাকশন’ থেকে উভয়পক্ষেরই বিরত থাকা উচিত।’

অন্যরা আরও যা পড়ছে:

আমেরিকা ভারতকে ভালবাসে: মোদির শুভেচ্ছার জবাবে ট্রাম্প

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *