ব্র্যাড পার্সকেলকে নির্বাচনী প্রচারণা থেকে সরিয়ে দিলেন ট্রাম্প

আমেরিকা

ব্র্যাড পার্সকেলকে নির্বাচনী প্রচারণা থেকে সরিয়ে দিলেন ট্রাম্প। ব্র্যাড পার্সকেল প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নিজের নির্বাচনী প্রচারণা ম্যানেজার। সেই ব্র্যাড পার্সকেলকে সরিয়ে দিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। এক বিবৃতিতে ট্রাম্প জানিয়েছেন, ব্র্যাড পার্সকেলের স্থলে বিল স্টিফেনকে তার নির্বাচনী প্রচারণার দায়িত্ব দিয়েছেন।

বিল স্টিফেন এর আগে ২০১৬ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের সময় নির্বাচনী প্রচারণার ফিল্ড ডিরেক্টর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। গত মাসে ওকলাহোমায় নির্বাচনী প্রচারণায় ব্র্যাড পার্সকেলকে সেভাবে দেখা যায়নি বলে অভিযোগ তুলেছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।

সব মিলিয়ে পার্সকেলের কাজে খুব একটা খুশি হতে পারছেন না ট্রাম্প। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে জনপ্রিয়তার জরিপে বর্তমান প্রেসিডেন্টের অবস্থান নিম্নগামী। তাছাড়া গত মাসে ওকলাহোমার টুলসার নির্বাচনী সমাবেশে প্রত্যাশিত জনসমাগম না হওয়ায় পার্সকেলের উপর নাখোশ ছিলেন প্রেসিডেন্ট।

ব্র্যাড পার্সকেলের এ বিষয়টি নিয়ে তার ওপর অসন্তুষ্টি ছিলেন ট্রাম্প। ট্রাম্প। ২০১৮ সালে পার্সকেলকে ম্যানেজারের পদে বসান ট্রাম্প। এই বছরের নির্বাচনের জন্য এবার এই দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে ২০১৬ সালের নির্বাচনী প্রচারণার ফিল্ড ডিরেক্টর বিল স্টেফিয়েনকে।

তবে নির্বাচনী প্রচারণার ম্যানেজার পদ থেকে তাকে সরিয়ে দেওয়া হলেও তিনি শীর্ষ উপদেষ্টা হিসেবে বহাল থাকবেন বলেছেন ট্রাম্প।

বুধবার সামাজিক মাধ্যমে এক বিবৃতিতে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, ব্র্যাড পার্সকেল দীর্ঘদিন ধরেই আমার সঙ্গে ছিলেন। তিনি বর্তমানে নির্বাচনী প্রচারণার শীর্ষ উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

সাম্প্রতিক সময়ে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের মেয়ে ইভাংকা ট্রাম্প এবং তার স্বামী জেয়ার্ড কুশনারও ব্র্যাড পার্সকেলের দায়িত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।

পার্সকেলকে অবশ্যই নিজের সহযোগী হিসেবেই রাখছেন ট্রাম্প। ২০১৬ সালের নির্বাচনী প্রচারণায় ডিজিটাল অ্যান্ড ডাটা ডিরেক্টর ছিলেন তিনি, আবারও সেই দায়িত্বেই ফেরানো হচ্ছে তাকে।

এই নতুন সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে ট্রাম্প টুইট করেছেন, ‘দুজনেই আমাদের ২০১৬ সালের ঐতিহাসিক জয়ে বিশাল ভূমিকা রেখেছিলেন। এখন আমি আনন্দের সঙ্গে ঘোষণা করছি বিল স্টেফিয়েনকে ট্রাম্পের নির্বাচনী ম্যানেজার হিসেবে পদোন্নতি দেওয়া হলো এবং ব্র্যাড পার্সকেল, যিনি আমার সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে আছেন এবং আমাদের চমৎকার ডিজিটাল ও ডাটা স্ট্র্যাটেজির নেতৃত্ব দিয়েছেন, তাকে সেই ভূমিকাতেই রাখা হচ্ছে।’

আরও পড়ুন-

বিদেশি শিক্ষার্থীদের দেশ ত্যাগের সিদ্ধান্ত বাতিল করল ট্রাম্প প্রশাসন

মার্কিন রণতরীর আগুন নেভাতে পারছে না ৪০০ কর্মীও

ট্রাম্পের বেপরোয়ার কারনে লাগামহীন দেশও

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *