সাহাবউদ্দিন মেডিকেলে ওটিতে মেয়াদোত্তীর্ণ সার্জিক্যাল সামগ্রী

সাহাবউদ্দিন মেডিকেলে ওটিতে মেয়াদোত্তীর্ণ সার্জিক্যাল সামগ্রী

বাংলাদেশ

সাহাবউদ্দিন মেডিকেলে ওটিতে মেয়াদোত্তীর্ণ সার্জিক্যাল সামগ্রী পাওয়া গেছে। রাজধানীর গুলশান-২ এ অভিযান চালিয়ে হাসপাতালটির ওপারেশন থিয়েটারে (ওটি) ১১ বছর আগের মেয়াদোত্তীর্ণ সার্জিক্যাল সামগ্রী উদ্ধার করেছে ‌র‌্যাব। এসব সার্জিক্যাল সামগ্রী অপারেশন করার সময় রোগীদের অজ্ঞান করার কাজে ব্যবহৃত হতো বলে জানিয়েছেন অভিযানে অংশ নেয়া কর্মকর্তারা।

বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে রোববার (১৯ জুলাই) রাজধানীর গুলশান-২ এ অবস্থিত সাহাবুদ্দিন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে অভিযান চালায় র‌্যাবের ভ্রাম্যমান আদালত। এতে নেতৃত্ব দেন র‌্যাব সদর দফতরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম।

হাসপাতালটির একটি অপারেশন থিয়েটারে অভিযান চালায় র‌্যাব। এ সময় ওপারেশন থিয়েটারে মেয়াদোত্তীর্ণ পাঁচটি সার্জিক্যাল সামগ্রী (এনডোট্রাসিয়াল টিউব) উদ্ধার করা হয়। পরে এসব সার্জিক্যাল সামগ্রী যাচাই করে দেখা যায়, এগুলোর কোনোটির মেয়াদ ২০০৯ সালে আবার কোনোটির মেয়াদ ২০১১ সালে শেষ হয়েছে। হাসপাতালটির বাকি চারটি ওপারেশন থিয়েটার তালা মারা।

অভিযানে উপস্থিত ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের এক কর্মকর্তা জানান, এসব সার্জিক্যাল সামগ্রী অপারেশন করার সময় রোগীর গলার ভেতর ঢোকানো হয়। তবে এই সামগ্রীগুলো মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ায় এতে রোগীর মৃত্যুঝুঁকি রয়েছে।

এদিকে অভিযানে অসহযোগিতা করায় সাহাবউদ্দিন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. মোহাম্মদ আবুল হাসনাত ও ইনভেন্টরি অফিসার শাহজির কবির সাদিকে নিজেদের হেফাজতে নিয়েছে র‌্যাব।

রোববার (১৯ জুলাই) বিকেল ৩টার দিকে অভিযান শুরু হয়। প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত (সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা) হাসপাতালটিতে অভিযান চলছিল। র‌্যাবের একটি সূত্র জানিয়েছে, করোনার র‌্যাপিড কিট টেস্ট, অ্যান্টিবডি নিয়ে বেশকিছু অভিযোগ খতিয়ে দেখতে হাসপাতালটিতে অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে।

কোভিড-১৯ (করোনাভাইরাস) রোগীদের চিকিৎসায় যুক্ত বেসরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মধ্যে অন্যতম ৫০০ শয্যার সাহাবুদ্দিন মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল। সম্প্রতি বেশকিছু অনিয়মের অভিযোগ ওঠে হাসপাতালটির বিরুদ্ধে।

আরও পড়ুন-

চীনা ভ্যাকসিন প্রয়োগ হবে দেশের ২১০০ জনের ওপর

রিজেন্টের পর সাহাবউদ্দিন মেডিকেলে র‌্যাবের অভিযান

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *