সোলেমানি হত্যার সহযোগী ইরানি গুপ্তচরের ফাঁসি কার্যকর

আমেরিকা মধ্যপ্রাচ্য লিড নিউজ

ইরানের রেভল্যুশনারি গার্ডের কুদস ফোর্সের কমান্ডার জেনারেল কাসেম সোলেমানি হত্যার সহযোগী দেশটির এক গুপ্তচরের ফাঁসি কার্যকর করা হয়েছে।ওই গুপ্তচর ব্যক্তির নাম মাহমুদ মৌসাভি মাজদ। তিনি একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের হয়ে অনুবাদকের কাজ করতেন।

ইরানের বিচার বিভাগ মিজান অনলাইনের ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, সোমবার সকালে মাহমুদ মৌসাভির ফাঁসি কার্যকর করা হয়েছে। তিনি দেশের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছিলেন।চলতি বছরের জানুয়ারিতে ইরাকের বাগদাদে যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোন হামলায় নিহত হন সোলেমানি। এরপর দুই দেশের মধ্যে বিদ্যমান উত্তেজনা আরও বৃদ্ধি পায়।

এ ফাঁসি কার্যকরের আগে চলতি মাসের শুরুর দিকে ইরানের বিচার বিভাগের মুখপাত্র গোলাম হোসাইন ইসমাইলি জানান, জেনারেল সোলাইমানি কোথায় আছেন, কোথায় যাচ্ছেন—এসব তথ্য এবং দেশের সশস্ত্র বাহিনী ও কুদস ফোর্সের বিভিন্ন তথ্য চুরি করে ফাঁস করে দিতেন মাহমুদ মৌসাভি।

মৌসাভি যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ এবং ইসরায়েলের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের কাছ থেকে বড় অঙ্কের অর্থ পেয়েছিলেন। তবে সোলাইমানি হত্যায় সরাসরি যুক্ত ছিলেন না মাহমুদ মৌসাভি। কারণ, প্রায় দুই বছর আগে তিনি গ্রেপ্তার হয়েছিলেন। গত জুনে এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছিল ইরানের বিচার বিভাগ।

সোলেমানিকে হত্যার পর আমেরিকা ও ইরানের মধ্যে রীতিমতো যুদ্ধের পরিস্থিতি তৈরি হয়। যদিও দুই দেশ যুদ্ধ এড়াতে সক্ষম হয়। গত সপ্তাহেই সোলেমানি হত্যায় সহযোগিতাকারী এক মার্কিন গুপ্তচরের মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে ইরান। গুপ্তচর ইরানেরই নাগরিক। সোলেমানির গোপন তথ্য আমেরিকার হতে তুলে দেয়ার মামলায় সাইয়েদ মাহমুদ মৌসাভি মজিদের মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেয় বিচার বিভাগ।

বিচার বিভাগের মুখপাত্র গোলাম হোসেইন ইসমাইলি জানান, মাজিদ সোলেমানি সম্পর্কে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ ও ইসরাইলের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের হাতে নগদ টাকার বিনিময়ে তথ্য তুলে দেয় মাজিদ। কিন্তু বিচার বিভাগের মিডিয়া অফিস জানায়, সোলাইমানি হত্যার সময় মাজিদ জেলে ছিল।

ইসমাইলি বলেন, রেভ্যুলেশনারি আদালত কর্তৃক দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পরে ও পৃথক আদালতের দ্বারা দোষী সাব্যস্ত নিশ্চিত হওয়ার পরে ফাঁসির রায় কার্যকর করা হবে। ইসমাইলি আরও জানান, সিআইএ এবং মোসাদের অন্যতম গুপ্তচর মাহমুদ মুসভী মাজিদের মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেয়া হয়েছে।

মৌসাভি সম্পকে ইসমাইলি আরও বলেন, তিনি আমাদের শত্রুর হাতে কাসেম সোলেমানির অবস্থান সম্পর্কে তথ্য দিয়েছিলেন। মাজিদ ইরানের সশস্ত্র বাহিনী ও বিশেষত রেভ্যুলেশনারি গার্ড সম্পর্কে ইসরাইল এবং আমেরিকান গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর কাছে নিরাপত্তা বিষয়ক বিভিন্ন তথ্য পাচার করেছেন।

আরও পড়ুন-

কাসেম সোলেমানি হত্যার বিচার হতেই হবে: জাতিসংঘ

সোলেমানির চিন্তাধারা বেশি ভয় পায় যুক্তরাষ্ট্র: ইরান

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *