https://www.theasianjournals.com/wp-content/uploads/2021/06/১০-তলা-বাড়ি.png

মাত্র ২৮ ঘণ্টায় ১০ তলা ভবন নির্মাণ চীনে

চীন লিড নিউজ

হুনান, চীন- দুই মাস-ছয় মাস নয়, মাত্র ২৮ ঘণ্টায় ১০ তলা ভবন।  সব হিসেব-নিকেশ উল্টে দিয়ে চীনের হুনান প্রদেশের চাংশা শহরে দ্রুত সময়ে ভবন নির্মাণের রেকর্ড গড়েছে একটি নির্মাণ কোম্পানি। আকাশচুম্বী ভবন তৈরিতে সাধারণত কয়েক মাস সময়ের দরকার হয়। সেখানে একদিনের কিছু বেশি সময়ে ১০ তলা ভবন নির্মাণ সম্পন্ন করেছে চীনের ব্রড গ্রুপ। এক্ষেত্রে তারা তাদের যুগান্তকারী ‘লিভিং বিল্ডিং সিস্টেম’ ব্যবহার করেছে।

ভবনটি নির্মাণ করার সঙ্গে সঙ্গে বিদুৎ ও ইন্টারনেট সেবাও প্রদান করা হয়। এত অল্প সময়ের মধ্যে বানানো হলেও বাড়িটি যথেষ্ট মজবুত বলে দাবি করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

গত ১৩ই জুন ব্রড গোষ্ঠী তাদের ইউটিউব চ্যানেলে প্রায় ভবনটি তৈরির বিষয়ে পাঁচ মিনিট দীর্ঘ একটি ভিডিও পোস্ট করে। ওই ভিডিওতে তারা দেখিয়েছে, কিভাবে পুরো কাঠামোটি এত দ্রুত তৈরি করা সম্ভব হয়েছে। তারা জানিয়েছে, এই ‘লিভিং বিল্ডিং সিস্টেমে’র মডিউল তথা ভবনের বিভিন্ন অংশ প্রথমে কারখানায় তৈরি করে নেওয়া হয়। অংশগুলো স্বাভাবিক মালবাহী ট্রাকে করে পরিবহন করা যায়। তারপর যেখানে ভবনটি স্থাপন করা হবে, সেখানে অত্যন্ত সহজেই শুধুমাত্র নাট-বল্টু দিয়ে ভবনের অংশগুলো জুড়ে দেওয়াযোয়।   

এই লিভিং বিল্ডিং সিস্টেমের কাঠামোগত উপাদান হিসাবে ব্যবহার করা হয়েছে ইস্পাতের বিশেষ স্ল্যাব। প্রচলিত ইস্পাতের স্ল্যাব থেকে এগুলো ১০ গুণ বেশি হালকা ও ১০০ গুণ বেশি শক্তিশালী। তবে ব্রড গ্রুপ যে এই প্রথম দ্রুত ভবন বানিয়ে বিশ্বকে চমকে দিল, তা নয়। এর আগে ২০১৫ সালে লিভিং বিল্ডিং সিস্টেম ব্যবহার করে মাত্র ১৯ দিনে ৫৭ তলা ভবন তৈরি করেছিল তারা।

ভবন নির্মাণের একটি ভিডিও অনলাইনে ভাইরাল হয়ে গেছে। ইউটিউবে ৪ মিনিট ৫২ সেকেন্ডের টাইমল্যাপস ভিডিওতে পুরো ভবন নির্মাণের দৃশ্য প্রকাশ করেছে ব্রোড গ্রুপ। ভবন নির্মাণের এই গতি দেখে অনেকেই বিস্মিত হয়েছেন। এই বাড়ির অভ্যন্তরীণ নকশার প্রশংসা করে টম রিটুসি নামের একজন বলেছেন, ভবন নির্মাণের শেষটি ছিল অত্যন্ত চমৎকার।

হানাটোমি নামের অপর একজন লিখেছেন, বাড়ি নির্মাণের ক্ষেত্রে এটি এক ধরনের বিপ্লব। আগেই তৈরি করে রাখা এ ধরনের বাড়ির অন্যতম সুবিধা হল- প্রয়োজনে এর যে কোনো অংশ খুলে ফেলা যায়। ব্রোড গ্রুপ বলেছে, পূর্ব-নির্মিত বাড়ি অত্যন্ত মজবুত এবং ভূমিকম্প প্রতিরোধী।

[আরও পড়তে পারেন: হংকং ইস্যুতে যুক্তরাজ্যকে পাল্টা হুমকি চীনের]

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।