অ্যাসল্ট রাইফেল একে-২০৩

ভয়ংকর অস্ত্র একে-২০৩ অ্যাসল্ট রাইফেল বানাচ্ছে ভারত

ইউরোপ ভারত লিড নিউজ

রাশিয়ার সঙ্গে মিলে ভয়ংকর অ্যাসল্ট রাইফেল একে-২০৩ বানাচ্ছে ভারত। ৬৭ কোটি ডলারের যৌথভাবে ৭ লাখ  রাইফেল তৈরির একটি চূক্তি প্রায় চূড়ান্ত হয়ে গেছে। মঙ্গলবারই এ বিষয়ে ছাড়পত্র দিয়েছে ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। এখন শুধু আনুষ্ঠানিক স্বাক্ষরের পালা। সামনের মাসেই নয়াদিল্লি সফরে আসছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। ওই সফরেই চুক্তিটি সই হবে।

চুক্তি মতে, রাশিয়া থেকে প্রথমে ২০ হাজার একে-২০৩ অ্যাসল্ট রাইফেল আমদানি করবে ভারত। এরপর অবশিষ্ট রাইফেলগুলো যৌথভাবে তৈরি করা হবে। আগামী বছরের গোড়ায়ই উত্তরপ্রদেশের আমেথির একটি কারখানায় শুরু হবে উৎপাদন।

রাশিয়ার কালাশনিকভ কোম্পানির তৈরি একে-৪৭ পৃথিবী বিখ্যাত। একে-২০৩ কে তারই সহোদর বলা যায়। দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি ইনসাস রাইফেলের বদলে ভারতীয় সেনাবাহিনীর পদাতিক ব্যাটালিয়নগুলোতে রাইফেলগুলো ব্যবহৃত হবে। ৫.৫৬ মিলিমিটারের ইনসাসের তুলনায় একে সিরিজের ৭.৬২ মিলিমিটার কার্তুজ অনেক বেশি প্রাণঘাতী। কার্যকরী পাল্লাও বেশি। অত্যাধুনিক ওই রাইফেল থেকে মিনিটে প্রায় ৭০০ রাউন্ড গুলি ছোড়া সম্ভব।

২০১৮ সালের এপ্রিলে তৎকালীন প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারমনের রাশিয়া সফরের সময় বিষয়টি নিয়ে প্রাথমিক চুক্তি সই হয়েছিল। চুক্তি অনুযায়ী রুশ প্রযুক্তি ব্যবহার করে এ দেশের অস্ত্র কারখানায়ই কালাশনিকভ রাইফেলের সর্বাধুনিক মডেল বানানোর অনুমতি পায় ভারত। ২০১৯’র মার্চে আমেথির করওয়ার অর্ডন্যান্স ফ্যাক্টরিতে একে-২০৩ রাইফেল উৎপাদন প্রকল্প উদ্বোধন করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

রাশিয়ায় সমাজতান্ত্রিক বিপ্লবের দুই বছর পর ১৯১৯ সালের ১০ নভেম্বর রাশিয়ায় জন্ম নেন মিখাইল টিমোফেয়েভিচ কালাশনিকভ৷ তার হাত ধরেই পরবর্তীতে একে সিরিজের ২০০টি অ্যাসল্ট রাইফেল ডিজাইন হয়। এর মধ্যে রয়েছে একে-১০১, একে-১০২, একে-১০৩, একে-১০৪, একে-১০৫ ও একে-১২৷

এই সিরিজেরই নবম সংযোজন একে-২০৩। এদিকে একে-৪৭-র জনপ্রিয়তা ও সহজলভ্যতা এতো বেশি যে অনেক সমরাস্ত্র বিশেষজ্ঞরা অস্ত্রটির নাম দিয়েছেন ‘পিপলস গান’ বা জনতার অস্ত্র৷ বর্তমানে চীন সহ ৩০টিরও বেশি দেশে বৈধ উপায়েই ব্যবসার জন্য উৎপাদন হয় কালাশনিকভ৷

৩ লক্ষ ৭০ হাজার একে ২০৩ সিরিজের রাইফেল কেনার বিষয়ে আগেই রাশিয়ার সঙ্গে চুক্তি হয়েছে ভারতে। পাশাপাশি অতিরিক্ত একে ১০৩ কেনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ২০১৭ সালে ৪৪ হাজার লাইট মেশিন গান এবং ৪৬ হাজার কার্বাইনের পর এবার নতুন করে রাশিয়ার কাছে অর্ডার দেওয়া হচ্ছে একে ১০৩ সিরিজের রাইফেল। একে ১০৩-এর থেকে গুণগতভাবে সামান্য উন্নত এই একে-২০৩

কালাশনিকভ রাইফেলের মধ্যে এখন সর্বাধিক জনপ্রিয় একে-২০৩

সেনাবাহিনীর জন্য এর উদ্ভাবন হলেও কালো বাজারেও ব্যাপক সহজলভ্যতা এই অস্ত্র৷ তালিবান ও আইএস থেকে শুরু করে বিভিন্ন জঙ্গিগোষ্ঠীর হাতে সহজেই পৌঁছে গেছে এই সিরিজের একাধিক অস্ত্র। যার মধ্যে সর্বকালের সবথেকে জনপ্রিয় একে-৪৭। অন্যদিকে আধুনিক প্রজন্মের অ্যাসল্ট রাইফেলের মধ্যে সর্বাধিক জনপ্রিয় একে-১০৩ ও একে-২০৩। কালাশনিকভ রাইফেলগুলোর মধ্যে বর্তমানে আবার সর্বাধিক জনপ্রিয় এই দুই রাইফেলই। এই রাইফেলে ৫.৫৬ এমএম কার্তুজ ও ৭.৬২ এমএম কার্তুজ সহজেই ভরা যায়। প্রতিটা রাইফেলের দাম পড়ে ৮০ হাজার থেকে ১ লক্ষ টাকার উপরে। দ্য প্রিন্ট ও হিন্দুস্তান টাইমস।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।