aliban-leader-calls-for-help-in-first-afghan-

আল্লাহই আমাদের খাবারের ব্যবস্থা করবেন: আফগান প্রধানমন্ত্রী

পূর্ব এশিয়া লিড নিউজ

আল্লাহই আমাদের খাবারের ব্যবস্থা করবেন বলে মন্তব্য করেছেন আফগান প্রধানমন্ত্রী মোল্লা মোহাম্মদ হাসান আখুন্দ। তিনি বলেন,তালেবান ক্ষমতা দখলের পর আফগানিস্তানে বেকারত্বের হার ও দ্রব্যমূল্যের দাম বেড়ে যাওয়া নিয়ে নানা ধরনের গুজব ছড়ানো হচ্ছে। এগুলো অজ্ঞ লোকের কাজ মন্তব্য করে তিনি বলেন, এজন্য বর্তমান পরিস্থিতির জন্য আগের সরকারই দায়ী। পাঝওক আফগান নিউজ।

আফগান প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্বগ্রহণের পর গত শনিবার প্রথমবারের মতো জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে হাসান আখুন্দ উল্টো প্রশ্ন ছুড়ে বলেন, তালেবান ক্ষমতা দখলের পরেই কি আফগানিস্তান সংকটে পড়েছে নাকি এগুলো আগে থেকেই ছিল। তিনি বলেন, আফগান ইসলামিক আমিরাত কাউকে রিজিকের প্রতিশ্রুতি দেয়নি, আল্লাহই সবার জন্য খাবারের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। আসুন, আমরা তার কাছে প্রার্থনা করি। তিনিই আমাদের সমস্যার সমাধান করবেন।

তালেবানের এ নেতা দাবি করেন, আফগানিস্তানে ক্রমবর্ধমান বেকারত্ব ও অর্থনৈতিক সংকট মার্কিন-সমর্থিত সরকার থাকার সময়েই ছিল। এগুলো তালেবান ক্ষমতা দখলের কারণে তৈরি এমন কথায় আফগানদের প্রভাবিত না হতে অনুরোধ করেন তিনি।

হাসান আখুন্দ অভিযোগ করেন, পালিয়ে থাকা আগের সরকারের কিছু অংশ এখনো উত্তেজনা তৈরি করছে এবং তালেবান সরকারকে নিয়ে বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়াচ্ছে। পশ্চিমা মদতপুষ্ট ওই সরকার ‘বিশ্বের সবচেয় দুর্বল শাসন ব্যবস্থা’ ছিল বলেও মন্তব্য করেন বর্তমান আফগান প্রধানমন্ত্রী।

দেশটিতে চলমান দুর্ভিক্ষ আল্লাহর পরীক্ষা উল্লেখ করে তিনি বলেন, আসুন, সবাই এই পরিস্থিতি থেকে উত্তরণে খোদার কাছে প্রার্থনা করি। আফগান প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা সমস্যায় জর্জরিত। সৃষ্টিকর্তার দয়ায় আমরা জনগণের দুর্দশা ও কষ্ট দূর করার চেষ্টা করছি। এসময় বিপদগ্রস্ত আফগানদের সংকট নিরসনে আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোকে অর্থ ও সহযোগিতা আটকে না রাখতে অনুরোধ করেন এ নেতা।

আফগানিস্তানকে বিপর্যয়ে ফেলেছে যুক্তরাষ্ট্র:রাশিয়া

আফগানিস্তানের বর্তমান সংকটের জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে দায়ী করেছে রাশিয়া। ওয়াশিংটনই আফগানিস্তানকে বড় মানবিক বিপর্যয়ের মধ্যে ফেলেছে বলে মন্তব্য করেছেন রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা। মুখপাত্র মারিয়া বলেন, আফগানিস্তানের সংকট আরও বাড়ছে। পরিস্থিতি উত্তরণে যুক্তরাষ্ট্র যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে এটি উপহাস ছাড়া কিছুই নয়। তাদের সম্পদ কখন ছাড় দেবে তাও স্পষ্ট করেনি দেশটি।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, যুক্তরাষ্ট্র আফগানিস্তান ছেড়ে যাওয়ায় এখন তালেবান সরকারের সঙ্গে সুসম্পর্ক গড়ে তুলবে মস্কো। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞ মেহদি আফজালি বলেন, মধ্য এশিয়ায় নিজেদের নিরাপত্তার স্বার্থে তালেবানকে সন্তুষ্ট করতে চায় রাশিয়া। আরেক বিশেষজ্ঞ আজিজ মুজাদিদি মনে করেন, যুক্তরাষ্ট্রের উচিত আফগান জনগণ ও দেশটির সরকারের ইচ্ছাকে সম্মান করা। ফলে উভয়ের মধ্যেই সুসম্পর্ক বজায় থাকবে।

আফগানিস্তানের সংকটে সম্প্রতি রাজধানী কাবুলে সামরিক বিমানে ত্রাণ সহায়তা পাঠিয়েছে রাশিয়া। রুশ মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা বলেন, ‘আফগান জনগণের জন্য ৩৬ টন খাবার এবং মৌলিক সহায়তা পাঠানো হয়েছে। দেশটিতে ভবিষ্যতেও সহায়তা অব্যাহত রাখবে মস্কো’। গত ১৫ আগস্ট রাজধানী কাবুল দখল করে নেয় তালেবান। এরপরই দেশটিতে সহায়তা বন্ধ করে দেয় অনেকে। ফলে মানবিক বিপর্যয়ে পড়েছে আফগান জনগণ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।